আজ বৃহস্পতিবার, , ২১ জুন ২০১৮ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ মে, ২০১৮ ২৩:০০

গবেষণা ও শিক্ষার জন্য মরণোত্তর দেহ দান তসলিমার

মেডিকেলে গবেষণার কাজে ব্যবহারের জন্য মরণোত্তর দেহ দান করলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। অবশ্য এর আগে ২০০৫ সালেই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে তিনি একবার মরণোত্তর দেহ দান করেছিলেন।

কিন্তু কলকাতার দরজা তাঁর জন্য বন্ধ উল্লেখ করে নতুন দিল্লিতে মরণোত্তর দেহ দানের বিষয়টি নিজেই জানালেন তসলিমা।

মঙ্গলবার (২২ মে) দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স (এইমস) এ গিয়ে মরণোত্তর দেহ দানের অঙ্গীকারপত্রে সই করে এসেছেন তিনি।

এ বিষয়ে সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরকে তসলিমা নাসরিন বলেন, মরণোত্তর দেহ দানের মধ্যে দিয়ে অর্গান প্রতিস্থাপনও অন্তর্ভুক্ত।


দেহদানের খবর জানিয়ে ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসে তসলিমা নাসরিন লিখেন, ‘মরণোত্তর দেহ দান করেছিলাম কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে, ২০০৫ সালে। কিন্তু কলকাতার দরজা তো আমার জন্য বন্ধ। অগত্যা এইমস হাসপাতালেই মরণোত্তর দেহ দানের ব্যবস্থা করলাম।’

এছাড়া এক টুইট বার্তাতেও তসলিমা লিখেন, ‘AIIMS-এ গবেষণা ও শিক্ষার জন্য আমি দেহদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত