বুধবার, , ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

জুবায়ের আহমদ, লন্ডন থেকে

১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:২১

রায়ে পুরোপুরি সন্তুষ্ট নয় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ

২১ আগস্টের হামলার মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ বলছে বর্বরোচিত এই গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ড বা মূলহোতা তারেক রহমানের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু তা হয়নি মূলহোতা তারেক রহমানের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এতে আমরা পুরোপুরি সন্তুষ্ট নয়।

বুধবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে বাংলাদেশে এই মামলার রায়ের পর লন্ডন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে তাৎক্ষণিক ভাবে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। লন্ডনের আলতাব আলী পার্কের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ বলেন, দীর্ঘ এতোগুলো বছর পর রায় হয়েছে। এতো দেরিতে হলেও আওয়ামী লীগ অখুশি নয়। তবে আমরা পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারছি না।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক তার বক্তৃতায় সাজা প্রসঙ্গে বলেন, এই হামলার যে প্ল্যানার বা মাস্টারমাইন্ড, তারেক রহমান ও হারিছ চৌধুরী তাদের শাস্তি হওয়া উচিত ছিল সর্বোচ্চ শাস্তি, মৃত্যুদণ্ড।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সিতাব মিয়া, যুগ্ম সম্পাদক নইম উদ্দিন রিয়াজ, মারুফ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ মিয়া, আব্দুল আহাদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক শাহ শামীম আহমদ, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক আসম মিসবাহ, জনসংযোগ সম্পাদক রবীন পাল, আন্তর্জাতিক সম্পাদক কাওসার আহমদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ছুরুক মিয়া, লন্ডন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলতাফুর রহমান মোজাহিদ, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমদ খাঁন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ছায়াদ আহমদ সাদ, শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক এম ইকবাল হোসেন, যুব শ্রমিকলীগের সভাপতি সৈয়দ বেলাল আহমদ, ছাত্রলীগের সভাপতি তামীম আহমদ, সাধারণ সম্পাদক সজীব ভূঁইয়া সহ সভাপতি সারোয়ার কবির প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ২৪ জন নিহত ও বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী আহত হন। দীর্ঘ ১৪ বছর পর এ হামলার মামলার রায় বুধবার (১০ অক্টোবর) ঘোষণা হয়।

রায়ে হামলায় জড়িত থাকার দায়ে জামায়াত বিএনপি সরকারের সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। একইসঙ্গে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান (বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান) তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া অপর ১১ আসামিকে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত