রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

০৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:১৩

নিউইয়র্কে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিউইয়র্ক সিটির স্পেশালাইজড হাইস্কুলে চান্স পাওয়া মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভিন্ন আমেজে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (৬ এপ্রিল) স্থানীয় সময় নিউইয়র্কে মজুমদার ফাউন্ডেশনের আয়োজনে বাংলাদেশি মেধাবী প্রজন্মের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে ব্রঙ্কসের স্টারলিং-বাংলাবাজার এলাকার ২০৬২ মেগ্গ্র এভিনিউর খলিল হালাল চাইনিজ।

২০১৯ সালে এসব মেধাবী শিক্ষার্থীরা নিজেদের জায়গা করে নেন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শীর্ষ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিউইয়র্ক সিটির শীর্ষ হাই স্কুলগুলোতে।

’মাইনরটি ট্যালেন্টেড এইচএস অ্যান্ড কলেজ স্টুডেন্টস ডিনার উইথ ব্রঙ্কস ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি ডারসেল ক্লার্ক’ শিরোনামে বিরল সম্মাননার জন্য শিক্ষার্থীরা ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান মজুমদার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ এন মজুমদারেকে।

অনুষ্ঠানে ছাত্ররা তাদের স্বপ্ন-সম্ভাবনার কথাও তুলে ধরেন এসময়। অভিভাবকরাও কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন এমন আয়োজনের।

মজুমদার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ এন মজুমদারের পরিচালনায় উৎসবমুখর পরিবেশের এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রঙ্কস ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি ডারসেল ক্লার্ক। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরী।

অন্যান্যদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মামুনস টিউটোরিয়ালের প্রিন্সিপাল ও সিইও শেখ আল মামুন, মার্কস হোম কেয়ারের ম্যানেজার আলমাস আলী, মজুমদার ফাউন্ডেশনের পরিচালক রাশেদ মজুমদার প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আসসাফা ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরস’র প্রেসিডেন্ট হাফিজ ইবাদুর রহমান চৌধুরী। অনুষ্ঠানে কমিউনিটি ও মুলধারার নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক সহ ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

ব্রঙ্কস ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি ডারসেল ক্লার্ক তার সাধারণ ফ্যামিলি থেকে ওঠে আসা, ছাত্র জীবন থেকে শুরু করে ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি হয়ে ওঠার গল্প শোনান অনুষ্ঠানে। ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় তার আন্তরিক প্রচেষ্টার কথওা উল্লেখ করেন তিনি। এ সুন্দর আয়োজনের জন্য আয়োজক মোহাম্মদ এন মজুমদারেকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান।

বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরী তার বক্তব্যে বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থার নানা দিক তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের আইনী ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আইনি ব্যবস্থার ফারাক রয়েছে। অন্যদিকে ব্রিটিশ আইনি ব্যবস্থার সঙ্গে মিল রয়েছে। ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় বিচার বিভাগের অবদানের কথা উল্লেখ করেন তিনি।

আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদার তার যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন, আজকের অবস্থানে ওঠে আসাসহ কমিউনিটি সেবায় নানা কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মজুমদার ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নানাভাবে কমিউনিটির সেবা দিয়ে আসছে। প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রমের মধ্যে স্বল্প আয়ের লোকদের সিটি হাউজিং, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা ও হেইট ক্রাইম ভিক্টিমদের সহায়তা প্রদান অন্যতম।

মামুনস টিউটোলিয়ালের প্রিন্সিপ্যাল শেখ আল মামুন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিউইয়র্ক সিটির স্পেশালাইজড হাইস্কুলে চান্স পাওয়া তার টিউটোরিয়ালের মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননার জন্য ব্রঙ্কস ডিস্ট্রিক্ট এটর্নি ডারসেল ক্লার্ক ও মোহাম্মদ এন মজুমদারেকে ধন্যবাদ জানান।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত