বুধবার, ২২ মে ২০১৯ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৭ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৩০

বৈশাখের রাতে ঢাকা শিল্পকলায় রাধারমণ-আব্দুল করিম

ধামাইল নৃত্যের প্রবর্তক ছিলেন রাধারমণ দত্ত। তিনি মরমী বৈষ্ণব কবি হলেও অন্যান্য বিষয় নিয়ে তিনি গান রচনা করেছেন। তার গানে জীবনের কথা আছে, ভালোবাসার কথা আছে, তেমনি বিচ্ছেদের কথাও আছে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় রাজধানীর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রাধারমণ সংস্কৃতিচর্চা কেন্দ্রের আয়োজনে রাধারমণ দত্ত ও শাহ্ আব্দুল করিমের গান "তুমি চিনিয়া মানুষের সঙ্গ লইও " অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সাবেক সিনিয়র সচিব ও শিল্পী শ্যামসুন্দর শিকদার।

তিনি আরো বলেন, বাউল শাহ্ আব্দুল করিম প্রায় পাঁচ শতাধিক গান রচনা করেছেন। জীবদ্দশায় তার ৭টি বই বেড়িয়েছে। রাধারমণ দত্ত ও শাহ্ আব্দুল করিম সম্পর্কে আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে জানানো দরকার।

মাহমুদ সেলিমের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক নারায়ণ চন্দ্র শীল।

এসময় তিনি বলেন,  বর্তমান সময়ে রাধারমণ ও শাহ্ আব্দুল করিম খুবই প্রাসঙ্গিক। বর্তমানে লোক সঙ্গীত একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। বিশেষ করে গানের বিকৃতির কারণে এমনটা হচ্ছে। গানের সুর সকিয়তা বজায় রাখতে সবার প্রতি তিনি  আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রবীন লোক সঙ্গীত শিল্পী আকরামুল ইসলাম বলেন,  রাধারমণ সহজ সরল ভাবে গানের মাধ্যমে তার বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। লোক গানের শিল্পী ছিলেন বাউল আবদুল করিম।

ড. বিশ্বজিৎ রায় তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, অত্যন্ত সহজ সরল ভাবে গান বুঝানোর চেষ্টা করেছেন রাধারমণ ও বাউল শাহ্‌ আবদুল করিম।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এবিসি ফার্মার কর্ণধার চন্দন কুমার পাল।

রাধারমণ সংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্রের সম্মিলক গান পরিবেশনার মাধমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। পরে একে একে একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন চন্দনা মজুমদার, বিশ্বজিৎ রায়, লাভলী দেব, আবু বকর সিদ্দিক, কানিজ খন্দকার নিতু ও খায়রুল ইসলাম।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত