সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২৫ মার্চ, ২০১৯ ১৫:৫০

লিডিং ইউনিভার্সিটিতে গণহত্যা দিবস পালন

গণহত্যা দিবস পালন করেছে লিডিং ইউনিভার্সিটি।

সোমবার (২৫ মার্চ) সকাল ১১টায় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে লিডিং ইউনিভার্সিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্যালারি-০১ এ এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে কোষাধ্যক্ষ বনমালী ভৌমিক উপস্থিত ছিলেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ২৫ মার্চের গণহত্যায় শহীদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে প্রধান অতিথির বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ থেকেই পাকিস্তান সরকার বুঝতে পেরেছিল বাঙালিদেরকে আর দমিয়ে রাখা যাবে না। আর সেখান থেকেই নীল নকশায় আলোচনার কথা বলে কালক্ষেপণ করেন তৎকালীন পাকিস্তান সরকার। আদেশ আসে ২৫ মার্চের গণহত্যার। একাত্তরের এই দিনে পাকিস্তান সেনাবাহিনী পূর্বপরিকল্পিতভাবে অপারেশন সার্চলাইট অনুযায়ী বাঙালি নিধনে ইতিহাসের বর্বরতম হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল। তিনি এ দিবসকে জাতীয়ভাবে স্বীকৃতি দেওয়ার বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আন্তর্জাতিকভাবে এর স্বীকৃতি পাবার দাবি জানান।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে চেতনার উৎস উল্লেখ করে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বনমালী ভৌমিক বলেন, ১৯৭০ সালে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করার পরও ক্ষমতা হস্তান্তর না করে বিভিন্নভাবে কালক্ষেপণ করে এবং বিভিন্নভাবে বাঙালি জাতিকে অত্যাচার করে এবং ২৫ মার্চ রাতের আঁধারে বর্বর হত্যাযজ্ঞ চালায় পাকিস্তান সামরিক জান্তা।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ৪৮ বছর পার হয়ে গেলেও এ বর্বর হত্যাকাণ্ডের বিচার হয় নাই। দীর্ঘ নয় মাস বাংলাদেশে গণহত্যা, ধর্ষণ, লুটপাটসহ যেসব মানবতাবিরোধী অপরাধ পাকিস্তান সেনাবাহিনী করেছে তা ছিল সুস্পষ্টভাবে যুদ্ধাপরাধ।

তিনি আশা প্রকাশ করেন বর্তমান সরকার অচিরেই এই গণহত্যার বিচার করবে। তখনই হবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চেতনার যথার্থ বাস্তবায়ন।

আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. এম. রকিব উদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সামস-উল আলম, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন, ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মো. রাশেদুল ইসলাম।

ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মানফাত জাবিন হকের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মেজর (অব) মো. শাহ আলম, পিএসসি।

আলোচনা শেষে শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান মো. ফজলে এলাহি মামুন।

আলোচনা সভায় লিডিং ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত