শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

বইমেলার ডায়েরি-২৫

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-২৭ ১০:০৩:৫৯

রেজা ঘটক:

সোমবার ছিল ছাব্বিশে ফেব্রুয়ারি। অমর একুশে বইমেলার শেষ সোমবার। ছুটির দিন না হলেও বইমেলায় বেশ ভিড় ছিল। বইপ্রেমীরা বই কিনছেন নিজেদের পছন্দে। আমিও কিনেছি।

শব্দশৈলী থেকে প্রকাশ পেয়েছে বন্ধু কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক রাজীব নূরের রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে সরেজমিন প্রতিবেদনগুলোর ফিচার 'সেপ্টেম্বর অন টেকনাফ রোড'। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী সোহেল আনাম। প্রচ্ছদে ব্যবহৃত আলোকচিত্রটি মামুনুর রশিদের। প্রথম ফ্ল্যাপ লিখেছেন তন্ময় ইমরান। দ্বিতীয় ফ্ল্যাপটি লিখেছেন কবি জাফর আহমদ রাশেদ। ফ্লাপে রাজীব নূরের প্রতিকৃতিটি তুলেছেন রাজবংশী রায়। বইটি প্রকাশ করেছেন ইফতেখার আমিন।

দেশ পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশ পেয়েছে সাংবাদিক হাসান আল জাভেদের রোহিঙ্গাদের জীবন ও সংগ্রাম নির্ভর উপাখ্যান ‘নাফ নদীর কন্যা’।

অমর একুশে বইমেলায় এবার প্রকাশিত হয়েছে কথাসাহিত্যিক ইমতিয়ার শামীমের গল্পগ্রন্থ 'কাল অকাল' ও 'যেখানে মৃত্যুনদী স্বপ্নসমুদ্র' এবং নোবেলজয়ী কথাসাহিত্যিক গ্যাব্রিয়াল গার্সিয়া মার্কেজকে নিয়ে বই 'মার্কেস : সঙ্গে নিঃসঙ্গে'। সাতটি গল্প নিয়ে গল্পগ্রন্থ 'কাল আকাল' প্রকাশ করেছে কথাপ্রকাশ। বউটির প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী সব্যসাচী হাজরা। 'মৃত্যুনদী স্বপ্নসমুদ্র' বইটিতে মোট আটটি গল্প। বাংলা প্রকাশ থেকে প্রকাশিত বইটির প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী ধ্রুব এষ। 'মার্কেস : সঙ্গে নিঃসঙ্গে' বইটি প্রকাশ করেছে কথা প্রকাশ। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন শিল্পী সব্যসাচী হাজরা।

বইমেলায় ঢুকেই বাংলা একাডেমির নজরুল মঞ্চের সামনে পেলাম নীলসাধু আর তুলা ভাবীকে। তুলা ভাবীকে ছেড়ে দিয়ে সাধুদাকে নিয়ে লিটলম্যাগ প্রাঙ্গণে ঢু দিলাম। দেখা হলো দ্রষ্টব্য ও করাতকল সম্পাদক ও কবি কামরুল হুদা পথিকদা, লেখক ঋষি এস্তেবান, কবি শাফি সমুদ্র, শিল্পী চারু পিন্টু ও কবি সারাহ বন্য'র সাথে।

তারপর সাধুদাকে নিয়ে নিয়ে গেলাম সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। শুরুতেই বিদ্যাপ্রকাশে কথাসাহিত্যিক মোহিত কামাল, বন্ধু জুলফিয়া ইসলাম ও লেখক ফারহানা আজিম শিউলী'র সাথে দেখা। এরপর সাধুদা গেলেন ঘুড়িতে। আর আমি এলোমেলো ঘুরতে ঘুরতে শ্রাবণে গিয়ে আড্ডায় মেতে উঠলাম সৈয়দ বদরুল আহসান ও রিমু'র সাথে। ততক্ষণে আমাদের সঙ্গে যোগ দিল চলচ্চিত্রনির্মাতা স্বরূপ আনন্দ, কাজী ফয়সল, লিয়াকত লিকু ও শাহজাহান সম্রাট।  কিছুক্ষণ পর দেখা হলো বন্ধুদ্বয় আলফ্রেড খোকন ও শাহেদ কায়েস এবং হেলালের সাথে। এবার সবাই মিলে উৎস ও কথাপ্রকাশ থেকে বই কিনলাম।

তারপর দেখা হলো আনু ভাই (আনু মোহাম্মদ) ও সফিক ভাই (গোলাম সফিক)'র সাথে। সেখানে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে আড্ডার পর আমরা গেলাম পামট্রির নিচে গিয়ে ধূমপান করতে। ততক্ষণে শাহেদ কায়েস কানপড়া দিয়ে খোকনকে নিয়ে বইমেলা থেকে বের হয়ে হারিয়ে গেল। আমারও যাবার কথা ছিল। গেলে আর বৃষ্টিতে ভেজা লাগত না।

সব নষ্টের মূল অসীম দা (কবি অসীম সাহা)। কলকাতা থেকে অসীমদার এক বান্ধবী নাকি বইমেলার মাঠে ঢুকে হারিয়ে গেছেন। সেই রাগে অসীমদা শতাব্দী ভবকে খুঁজে আচ্ছামত মাইর দিতে চাইলেন। ভাগ্যিস ভব আমার সাথে ছিল। অসীমদার রাগ জল হয়ে হাসিতে রূপ নিল।

এক শাহেদকে হারিয়ে আরেকটু চক্কর দিতেই পেয়ে গেলাম আরেক শাহেদ ভাইকে (শিল্পী শেখ শাহেদ আলী)। শাহেদ ভাই আমার সাথে যখন মোলাকাত করছেন, পেছন থেকে হাই ফাইভ জানালেন মিমি আপু (আফসানা মিমি)। মিমি আপু'র সাথে ছিল দুই বন্ধু রবীন আহসান ও রুমি আহমেদ। আমরা যখন ছবি তুলছি তখন শুরু হলো ঝড়।

ছত্রভঙ্গ হয়ে আমরা উদ্যান থেকে বের হয়ে বাংলা একাডেমিতে ঢুকতে গেলাম। কিন্তু বাংলা একাডেমি সবগুলো গেট বন্ধ করে দিয়েছে। সেই ঝড়বৃষ্টিতে নিজেরা ভিজে, সাথের বই ভিজিয়ে আমরা টিএসসিতে এসে আশ্রয় নিলাম। বৃষ্টিে কমলে আমরা শাহবাগ এসে পেলাম ময়মনসিংহ গংদের কবি শতাব্দী কাদের, কবি অতনু তিয়াস, কবি অনিন্দ্য জসিম ও কবি পিয়ালকে। ততক্ষণে আমাদের সাথে যোগ দিয়েছে নির্মাতা সন্দীপ বিশ্বাস। সেই সুযোগে কোত্থেকে সোহরাব সুমন এসে হাতে সিদ্ধ ডিম ধরিয়ে দিয়ে আবার ঝড়ের বেগে হাওয়া।     

আরও অনেক পরে আবারো আমাদের সাথে যোগ দিল মাহবুব মিত্র বাহিনী। তারপর আমাদের সেই চিরায়ত আড্ডা। বইমেলা প্রায় ফুরিয়ে আসছে। আমাদের আড্ডার বহর আরও লম্বা হচ্ছে। আর মাত্র তিন দিন বইমেলার পরেই মাসব্যাপী এই অমর একুশে বইমেলা সমাপ্তি হচ্ছে। পুরনো বন্ধুদের সাথে আড্ডায় আড্ডায় সময়গুলো তাই মধুর যাচ্ছে।

অমর একুশে বইমেলার আর মাত্র দুই দিন বাকি। বন্ধুরা বইমেলায় আসুন, নিজের পছন্দের বই কিনুন। প্রিয়জনকে বই উপহার দিন। সবাইকে অমর একুশে বইমেলার শুভেচ্ছা। বইমেলা অমর হোক। ভাষা শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করি। জয়তু অমর একুশে গ্রন্থমেলা। জয়তু ভাষার মাস।
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

  • রেজা ঘটক: কথাসাহিত্যিক, চলচ্চিত্র নির্মাতা।

আপনার মন্তব্য