সোমবার, , ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১০ জুলাই, ২০১৮ ১৪:০৯

নিজের জীবনের বিনিময়ে ১৩ জীবন বাঁচালেন সামান কুনান

থাইল্যান্ডের উত্তর চিয়াং রাই-এর থাম লাং গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলারদের জীবন বাঁচাতেই নিজ মৃত্যুকেই বরণ করে নিলেন থাই নৌসেনার প্রাক্তন সিল ডাইভারের সামান কুনান।

শুক্রবার দুপুরে উদ্ধারকাজ চলাকালীন সময়ে মৃত্যু হয় সামান কুনানের। এর আগে তিনি গুহায় আটকে পড়া শিশুদের জন্য ৩০টি অক্সিজেন ট্র্যাঙ্ক সরবরাহ করেছিলেন এই প্রাক্তন সিল ডাইভার।

থাইল্যান্ডের এক সেনা কর্মকর্তা বলেন, গুহায় অক্সিজেন লেভেল ১৫ শতাংশের নিচে নেমে গিয়েছিল। সাধারণত বাতাসে ২১ শতাংশ অক্সিজেন লেভেলকে স্বাভাবিক ধরা হয়। সামান বুঝতে পারছিল না এই অবস্থায় শিশুরা কিভাবে অবস্থান করবে।

নিজের জন্য চিন্তা না করে সব অক্সিজেন ট্র্যাঙ্কই গুহায় দিয়ে এসে ফেরার পথে মৃত্যু হয় সামান কুনানের, বললেন এই কর্মকর্তা।

অক্সিজেন সরবরাহ পৌঁছে দেবার পর থাম লুয়াং গুহা থেকে বেরুনোর পাঁচ ঘণ্টার যাত্রার সময় তিনি জ্ঞান হারান। তার সঙ্গী ডুবুরি তাকে টেনে বের করে নিয়ে আসেন এবং তার জ্ঞান ফেরানোর চেষ্টা করলেন আর ফেরানো যায়নি তার জ্ঞান।

থাই নৌ-সেনা থেকে সিল ডাইভার হিসাবে অবসর নিলেও সামান স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে উদ্ধার অভিযানে যেত। অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের ভক্ত সামান বিভিন্ন ধরনের অ্যাক্টিভিটির সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। থাই নৌ-সেনার অফিসাররাও তাঁকে একডাকেই চিনতেন। সামান-এর উপরে তাঁদের যথেষ্ট ভরসা ছিল বলেই জানিয়েছে থাই নৌ-সেনা।

থাই নৌ-সেনা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, থাম লাং গুহায় উদ্ধারকাজের জন্য তাদের প্রচুর ডাইভারের দরকার ছিল। সিল অফিসারদের মোবাইলে এই বার্তা পেতেই হাজির হয়ে গিয়েছিলেন সামান। এই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, প্রতিভাবান এবং দক্ষ সিল অফিসার ছিলেন সামান। ২০০৬ সালে তিনি নৌ-সেনা থেকে সেচ্ছাসেবক নিলেও সবসময় যোগাযোগ রেখে চলতেন। সামান-এর আত্মত্যাগকে শুধু থাইল্যান্ডের মানুষ নয় তামাম বিশ্ববাসীও স্যালুট জানিয়েছে।


আপনার মন্তব্য

আলোচিত