মঙ্গলবার, , ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

ল্যাংস্টোন হিউজের কবিতা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৪ ১৮:৩৩:০২

 আপডেট: ২০১৮-০৫-১৫ ০৩:০৯:৩০

জহিরুল হক মজুমদার:

ল্যাংস্টোন মারসার হিউজ, আমেরিকান কবি। জন্ম ১৯০২ সালে অ্যামেরিকার মিশৌরিতে, মৃত্যু ১৯৬৭ সালে। গত শতকের আমেরিকান উল্লেখযোগ্য কবিদের মধ্যে অন্যতম ল্যাংস্টোন হিউজ।

ল্যাংস্টোন হিউজ একাধারে কবি, সমাজকর্মি, নাট্যকার, ঔপন্যাসিক ও কলামনিস্ট। তাঁর লেখায় সমতার পক্ষে জয়গান, বর্ণবাদ ও অনাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, আফ্রো-অ্যামেরিকান কালচার, হিউমার ও স্পিরিচুয়ালিটি ব্যাপকভাবে ধরা পড়ে।

প্রোস্টেট ক্যান্সারের জটিলতায় ১৯৬৭ সালের ২২ মে মারা যান হিউজ।

আত্মহত্যা
 
আমার প্রিয় পুরুষটি চলে গেছে
তার বাক্স প্যাঁটরা গুছিয়ে।
আমার প্রিয় পুরুষটি চলে গেছে
তার বাক্স প্যাঁটরা গুছিয়ে।  
আমাকে ভালবাসার আর কেউ নেই
আমি আত্মহনন করবো।
আমি দশ ইঞ্চি লম্বা ছোরা কিনতে যাচ্ছি।  
আমি ফালাফালা করে ফেলবো নিজেকে অথবা ওই লোকটিকে
যে আমার সাথে প্রতারণা করেছে।

বিশ্বাস কর, আমি ঊননব্বই ফুট গভীর
নদীতে ঝাঁপ দেব।   
বিশ্বাস কর, আমি ঊননব্বই ফুট গভীর
নদীতে ঝাঁপ দেব।
নদী অনেক শান্ত
এই বোকা মেয়েটি সেখানে ঘুমাবে।  

মন্দভাগ্য

যখন মন্দভাগ্য তোমার উপর চড়াও হয়
তোমার কিছুই করার নেই।
যখন মন্দভাগ্য তোমার উপর চড়াও হয়
তোমার কিছুই করার নেই।
তোমার চমৎকার কাপড়গুলো, একখানে কর
আর, বিক্রি কর ইহুদীদের কাছে।
ইহুদীরা তোমার চমৎকার কাপড়গুলো নিয়ে
তোমাকে দেড়টি ডলার দেবে।

চলে যাও নকল মদের দোকানে
কিনে নাও কিছুটা জিন, আর তারপর কিছুটা হাস।

আমি যদি খচ্চর হতাম
তাহলে আমি একটি ওয়াগন টানতাম।
আমি যদি খচ্চর হতাম
তাহলে আমি একটি ওয়াগন টানতাম।
আমি এত নীচে পড়ে আছি
আমার ছোট্ট শোবার ঘরটুকুও নেই।

আপনার মন্তব্য