রবিবার, , ১৮ নভেম্বর ২০১৮ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২০ আগস্ট, ২০১৮ ১২:৫৯

কারামুক্ত হলেন ১৮ শিক্ষার্থী

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনের সময় সংঘাত, ভাঙচুর, উসকানি ও পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া ১৮ জন শিক্ষার্থী কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

সোমবার (২০ আগস্ট) সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রীয় কারাগার (কেরানীগঞ্জ) থেকে মুক্তি পান নয়জন। এর আগে রোববার (১৯ আগস্ট) রাতে মুক্তি লাভ করেন আরও নয়জন।  সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত কারামুক্তি পেয়েছেন মোট ১৮ জন শিক্ষার্থী।

সোমবার সকালে মুক্তিপ্রাপ্তরা হলেন- ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির খালিদ রেজা, রেদওয়ান আহমেদ, রাশেদুল ইসলাম, শাখাওয়াত হোসেন ও তরিকুল ইসলাম, সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির জাহিদুল হক ও নূর মোহাম্মদ, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির আজিজুল করিম এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের (আইইউবি) সিহাব শাহরিয়ার।

কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার জাহিদুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, জামিনের কাগজ পাওয়ায় সোমবার সকালে নয়জনকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। দুই দিনে মুক্তি দেয়া হয়েছে ১৮ জন শিক্ষার্থীকে। বাকিদের জামিনের কাগজ এখনো কারাগারে পৌঁছায়নি। কাগজ পেলেই তাদের মুক্তি দেয়া হবে।

রোববার রাতে মুক্তি পাওয়া ৯ শিক্ষার্থী হলেন—বাড্ডা থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থী রেজা রিফাত ওরফে আখলাক, ভাটারা থানা এলাকায় গ্রেপ্তার আইইউবির ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্র ফরিদ আহমেদ ও নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মেহেদী হাসান, বাড্ডা থানা এলাকায় গ্রেপ্তার ইস্টওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী মুশফিকুর রহমান, সাউথ ইস্ট ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের ষষ্ঠ বর্ষের ছাত্র সীমান্ত সরকার ও একই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ষষ্ঠ সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ইক্তিদার হোসেন।

এ ছাড়া বাড্ডা থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্ডাস্ট্রি ও প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম সেমিস্টারের ছাত্র ইফতেখার আহমেদ ও প্রেসিডেন্সিয়াল ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং একাদশ সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো. হাসানও মুক্তি পেয়েছেন। জামিনে কারাগার থেকে মুক্ত হয়েছেন ভাটারা থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বিবিএ শেষ বর্ষের ছাত্র সামাদ মর্তুজা বিন আজাদ।

এর আগে রোববার ঢাকার একাধিক ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মোট ৪২ শিক্ষার্থীর জামিন হয়। নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা, পুলিশের ওপর হামলা, পুলিশের কাজে বাধা ও ভাঙচুরের অভিযোগে এরা বাড্ডা, ভাটারা, ধানমন্ডিসহ বিভিন্ন থানার মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত