রবিবার, , ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ১৮:২৪

দুধ-দইয়ে ভেজাল অনুসন্ধান করে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টর নির্দেশ

দুধে ভেজাল মেশানো মারাত্মক দুর্নীতি বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুধ-দইয়ে অ্যান্টিবায়োটিক, অণুজীব, কীটনাশক ও সিসা  পাওয়ার ঘটনা অনুসন্ধান করে আইনগত ব্যবস্থা নিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত খবর প্রচার হওয়ার পর বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চের নজরে এলে আদালত স্বপ্রণোদিত হলে রুলসহ এ আদেশ দেন।

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) আর্থিক সহায়তায় গাভির খাবার, দুধ, দই ও প্যাকেটজাত দুধ নিয়ে জরিপের কাজ চালায় সরকারি প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির (এনএফএসএল)। এই জরিপের ভিত্তিতে এক গবেষণায় গাভির কাঁচা দুধে সহনীয় মাত্রার চেয়ে বেশি কীটনাশক ও নানা ধরনের অ্যান্টিবায়োটিকের উপাদান পাওয়া গেছে। পাওয়া গেছে বিভিন্ন অণুজীবও। একই সঙ্গে প্যাকেটজাত গাভির দুধেও অ্যান্টিবায়োটিক ও সিসা পাওয়া গেছে মাত্রাতিরিক্ত। বাদ পড়েনি দইও। দুগ্ধজাত এই পণ্যেও মিলেছে সিসা।

সরকারের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরি গরুর দুধের ৯৬ শতাংশ নমুনায় অণুজীব, ৩০ শতাংশ প্যাকেটজাত দুধে অ্যান্টিবায়োটিক পেয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, বাজারের কোনো কোনো দইয়ে ক্ষতিকর সিসাও আছে। প্রতিষ্ঠানটি গোখাদ্যেও মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশকসহ নানা ধরনের ক্ষতিকর রাসায়নিক পেয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত