মঙ্গলবার, , ১৯ মার্চ ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ২৩:৩১

সেই ভবনে কোনো রাসায়নিক গুদাম ছিলো না: শিল্পমন্ত্রী

পুরান ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাসায়নিক গুদামের কোনো সম্পর্ক নেই, ওই ভবনে কোনো রাসায়নিক গুদামও নেই বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তাঁর দাবি, এলপি গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে।

ঘটনাস্থল ওয়াহেদ ম্যানসন ও আশপাশের এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে বৃহস্পতিবার শিল্পমন্ত্রী বলেন, গতরাতে সেখানে যা ঘটেছে তার সঙ্গে রাসায়নিক পদার্থের কোনো সম্পর্ক নেই। সেখানে এলপি গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটেছিল।

২০১০ সালের ৩ জুন রাতে নিমতলীর ৪৩ নবাবকাটরার নিচতলায় কেমিক্যালের গুদামে আগুন লেগেছিল। ওই ঘটনায় ১২৩ জনের মৃত্যু হয়, দগ্ধ হন কয়েক শ মানুষ। ওই প্রসঙ্গ টেনে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ২০১০ সালে কেমিক্যাল থেকে আগুনের ঘটনা ঘটেছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেটাকে সুন্দরভাবে মোকাবিলা করেছেন। ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের প্রক্রিয়াও চলছে।

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত সম্পর্কে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘আমি নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এই এলাকায় গ্যাসের স্বল্পতা থাকায় সিলিন্ডারে করে এলপি গ্যাস দিয়ে রেস্টুরেন্ট ও বাসা-বাড়িতে রান্না চালানো হয়। ঘটনার সময় সেখানে গ্যাসের সিলিন্ডার নেওয়া হচ্ছিল। ওই সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে দুর্ভাগ্যবশত একটি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারে আগুন লাগে। এতে ট্রান্সফরমারটিও বিস্ফোরিত হয়ে পুরো এলাকা অন্ধকার হয়ে যায়।’

আগুনে পুড়ে যাওয়া ভবনে কোনো রাসায়নিক গুদাম নেই জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, ‘সেখানে কেমিক্যালের কোনো গোডাউন নেই, পারফিউম ও কসমেটিক সামগ্রীর গোডাউন আছে। আমি নিজে এটা দেখলাম। কেমিক্যালের সঙ্গে এই ঘটনার সম্পর্ক নেই।’

চকবাজারে আগুন লাগার ঘটনায় ৭০ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে প্রায় অর্ধশত। গত বুধবার রাত সোয়া ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত