সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১২ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:৫৯

মুষলধারে বৃষ্টি হলে ডেঙ্গু কমবে: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা ও ঢাকার বাইরে হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগীর ভর্তি কমেছে। তবে ডেঙ্গু পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে এটা বলার সময় এখনো আসেনি। তবে মুষলধারে বৃষ্টি হলে মশা কমবে, ডেঙ্গুও কমবে।

সোমবার (১২ আগস্ট) বিকেলে ডেঙ্গু পরিস্থিতি বিষয়ে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা এ কথা বলেন।

২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে নতুন দুই হাজার ৯৩ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। এই সংখ্যা ছিল এর আগের ২৪ ঘণ্টার চেয়ে ২৪১ জন কম।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসা অব্যাহত রাখার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক, নার্সসহ সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীর ঈদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বাস্থ্যকর্মীদের ঈদের ছুটি বাতিল হওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে সর্বশেষ ডেঙ্গু পরিস্থিতি বর্ণনা করেন রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক সানিয়া তাহমিনা্।

তিনি বলেন, এ পর্যন্ত ৪৩ হাজার ২৭১ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে, এর মধ্যে ৩৫ হাজার ২২৫ জন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে। আজ হাসপাতালে ভর্তি ছিল আট হাজার ৬ জন। এর মধ্যে ঢাকার হাসপাতালে চার হাজার ২০২ জন ও ঢাকার বাইরে তিন হাজার ৮০৪ জন।

সাংবাদিকেরা ঈদের ছুটির পর ডেঙ্গু পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াতে পারে তা সরকারি কর্মকর্তাদের কাছে জানতে চান।

উত্তরে আবুল কালাম আজাদ বলেন, পরিস্থিতি নির্ভর করছে বৃষ্টির ওপর। মুষলধারে বৃষ্টি হলে মশা কমবে, ডেঙ্গুও কমবে। বৃষ্টি থেমে থেমে হলে এডিস মশা বাড়বে। আবার গরম আবহাওয়ার বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকলেও মশা বাড়বে। তাতে ডেঙ্গুর প্রকোপও বৃদ্ধির আশঙ্কা আছে।

ঈদের ছুটি শেষে শহরে নিজ বাসায় ফেরার সময় কিছু করণীয় বিষয়ে পরামর্শ দেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

তিনি বলেন, পরিবারের সব সদস্যকে হাত-পা ঢাকা জামাকাপড় পরে ঘরে ঢুকতে হবে। ঘরে ঢুকে সব জানলা-দরজা খুলে ফ্যান ছেড়ে দিতে হবে। পর্দার পেছনে, চেয়ার-টেবিল-খাটের নিচে স্প্রে করতে হবে। কমোড ফ্লাশ করতে হবে, বেসিনে পানি ছাড়তে হবে। জমে থাকা সম্ভাব্য সব জায়াগার পানি ফেলে দিতে হবে।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের পরিচালক সমীর কান্তি সরকার, হাসপাতাল সেবা ব্যবস্থাপনার লাইন ডিরেক্টর সত্যকাম চক্রবর্তী, কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক আয়শা আক্তার, ডেঙ্গু কর্মসূচির ব্যবস্থাপক এম এম আক্তারুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত