মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ১৩:০৬

দুর্ঘটনাকবলিত তিন বগি রেখে চট্টগ্রাম যাচ্ছে উদয়ন এক্সপ্রেস

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলস্টেশনে তূর্ণা নিশীথা ও উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষের পর দুর্ঘটনাকবলিত তিন বগি রেখে চট্টগ্রাম পথে রওনা হলো উদয়ন এক্সপ্রেসটি। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সকাল ১১টার দিকে রেল যোগাযোগ শুরু হলে দুর্ঘটনাকবলিত উদয়ন এক্সপ্রেসটি চট্টগ্রাম পথে রওনা হয় বলে জানান আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কান্তি দাস।

এর আগে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) ভোর সাড়ে তিনটার দিকে সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী ও চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় বন্ধ হয়ে যায় ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রামের রেল যোগাযোগ। এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এছাড়া গুরুতর আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।

এ বিষয়ে আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কান্তি দাস জানান, চট্টগ্রামের সঙ্গে সিলেটের রেল যোগাযোগ চালু হওয়ায় সকাল পৌনে ১১টায় সিলেট রেল স্টেশন থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ছেড়ে যায়। তবে দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত তিনটি বগি মন্দবাগ রেলস্টেশনে ছেড়ে গেছে আন্তঃনগর এ ট্রেনটি।

এদিকে সিলেট রেল স্টেশন মাস্টার মো. আফছার উদ্দিন জানান, সিলেট থেকে পাহাড়িকা এক্সপ্রেস সকাল ৯টার পরিবর্তে ১১টায় ছেড়ে যায়। তবে এখনো ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান চলছে। সিলেট থেকে ছেড়ে যাওয়া ট্রেনটি ওই এলাকায় পৌঁছাতে বিকেল সাড়ে ৩টা বাজবে। এরমধ্যে উদ্ধার কাজ শেষ হবে।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১১ নভেম্বর) ভোর পৌনে ৩টার দিকে উপজেলার মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনের ক্রসিংয়ে আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও তূর্ণা নিশীথার মধ্যে এই দুর্ঘটনা ঘটে। উদয়ন এক্সপ্রেস সিলেট থেকে চট্টগ্রাম ও তূর্ণা  নিশীথা চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা অভিমুখে ছিল। মন্দভাগ রেল স্টেশনের কাছে ট্রেন দুটির মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে দুটি ট্রেনেরই বেশ কয়েকটি করে বগি দুমড়ে মুচড়ে যায়।

এতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি ও রেলওয়ে থেকে দু’টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে এসব তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রেল সচিব মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত