আজ মঙ্গলবার, , ১৭ জুলাই ২০১৮ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:৪৩

ইউনাইটেডে চিকিৎসা নিতে চান খালেদা জিয়া : রিজভী

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ রয়েছেন দাবি করে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়ার পছন্দ অনুযায়ী ইউনাইটেড হাসপাতালে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছি।

সোমবার (১৬ এপ্রিল) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

এসময় তিনি বলেন, এখন তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে, তার হাত-পা ও কোমরের ব্যথা আরও বেড়েছে। বেগম খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে হাঁটু ও পায়ের সমস্যায় ভুগছেন। নির্জন, পরিত্যক্ত ও স্যাঁতসেঁতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তাকে রাখা হয়েছে।

তাকে দেয়া বিছানা বালিশ অর্থোপেডিকের একজন রোগীর জন্য অনুপযোগী। সরকারি মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরাও অর্থোপেডিক বেড দেয়ার সুপারিশ করলেও এখনও তাকে সেই বেড দেয়া হয়নি। জরুরি ভিত্তিতে তার এমআরআইসহ উন্নত চিকিৎসার দরকার।

খালেদা জিয়ার অসুস্থতার খবর কিভাবে জেনেছেন-এমন প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, সব সময় এটা বলা যায় না, কয়েকদিন আগে তার (খালেদা জিয়া) আইনজীবী গিয়ে দেখা করেছেন। তারা দেখেছেন। তার আত্মীয়-স্বজনরা দেখা করেছেন। তাদের মাধ্যমে জেনেছি।

বেগম খালেদা জিয়া যেহেতু অসুস্থ এ অবস্থায় যদি জামিন না হয়. সে ক্ষেত্রে প্যারোলে মুক্তি চাইবেন কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আইনগত দিক, আমাদের রাজনৈতিক আন্দোলন সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে পরে জানানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ বারবার বলার পরেও কারাকর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে উপেক্ষা করছে। ক্ষমতাসীনদের দাপটে কারাকর্তৃপক্ষ তাদের মুঠোবন্দী। ফ্যাসিবাদের রোগ-লক্ষণ কারাকর্তৃপক্ষের মধ্যে তীব্র আকার ধারণ করেছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে-সরকার দেশনেত্রীকে এক অবনতিশীল স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে ফেলে রাখার জন্যই কারাকর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে। বিষয়টি গভীর উদ্বেগের ও বন্দি নির্যাতনের শামিল।

তিনি বলেন, আগে পরিবারের সদস্যদেরকে সাত দিন পরপর বেগম জিয়ার সাথে দেখা করতে দেয়া হলেও এখন ১০ দিন পর দেখা করার নির্দেশ হতে যাচ্ছে, এর উদ্দেশ্যই হচ্ছে বেগম জিয়াকে মানসিকভাবে যন্ত্রণা দেয়া। সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবেই নয়, দেশের একজন জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ ও দেশের কোটি কোটি মানুষের আশা ও ভরসার স্থল, বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার প্রতীক এবং বারবার দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনের নেত্রীর সুচিকিৎসা নিয়ে কারাকর্তৃপক্ষের টালবাহানা অত্যন্ত রহস্যজনক। সরকারের নির্দেশেই কারাকর্তৃপক্ষ বেগম জিয়ার প্রতি করছে নিষ্ঠুর ও অমানবিক আচরণ।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল বলেছেন, ‘কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে বিএনপি নোংরা রাজনীতি করতে না পারায় হতাশায় ডুবছে। লন্ডন ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে, কোটা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ছিল সাহসী পদক্ষেপ।’

আমি ওবায়দুল কাদের সাহেবের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে পরাজিত হওয়ায় এখন আপনারা বেসামাল হয়ে পড়েছেন। দিশেহারা হয়ে প্রতিদিন আপনারা বকবক করছেন বেশরমের মতো।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা গোলাম আকবর খন্দকার, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত