শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

৩০ এপ্রিল, ২০১৯ ১৬:১০

দলের সিদ্ধান্তে শপথ নেননি মির্জা ফখরুল

দলীয় সিদ্ধান্তে শপথ নেননি জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমি শপথ নেইনি। এটাও দলীয় সিদ্ধান্ত এবং আমাদের কৌশল।’

সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ার জন্য সময় বাড়ানোর আবেদন জানিয়ে কোনও চিঠি দেননি বলেও জানান বিএনপির মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘আমি কোনও চিঠি দেইনি। কোন সময়ও চাইনি।’

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে মানবাধিকার সংগঠন আওয়াজ আয়োজিত ‘উন্নয়নের মৃত্যুকূপে জনজীবন/'নুসরাত' একটি প্রতিবাদ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিভিন্ন মিডিয়ার ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘কিছু কিছু সংবাদমাধ্যম বলেছে আমি নাকি আজকে শপথ নেবো। তারা এখন কী লিখবেন।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের গণতন্ত্র চর্চার যে জায়গাটুকু, প্রতিবাদ করার যে জায়গাটুকু, তা একেবারেই সংকীর্ণ হয়ে আসছে। তাই, আমরা সেই জায়গা থেকে ন্যূনতম কথা বলার সুযোগ পেয়েছি। সময় প্রমাণ করবে এটা সঠিক সিদ্ধান্ত হল কি না।’

তিনি বলেন, ‘এটা নিয়ে অনেকে অনেক রকম কথা বলছেন। কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি, অনেকেই চিন্তা করছেন যে, সিদ্ধান্তটা আমাদের জন্য খুব খারাপ সিদ্ধান্ত। কিন্তু আমরা মনে করছি না। আমাদের এটার পেছনে সব চেয়ে বড় যুক্তি যেটা সেটা হচ্ছে— সামান্যতম যে সুযোগটুকু রয়েছে, যে স্পেস হয়েছে সেটুকু ব্যবহার করা। একটা কথা আমাদের মনে রাখতে হবে— যে কোনো কিছুই সময়ের প্রয়োজনে পরিবর্তন হয়। কিন্তু আমরা বিশ্বাস করি, এই সিদ্ধান্তটা সঠিক সিদ্ধান্ত। বাস্তবতার প্রেক্ষিতে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘রোববার থেকে রাজনীতি খুব গরম হয়ে উঠেছে। কারণ, বিএনপির নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নিয়েছেন। বলা যেতে পারে, এটা নিঃসন্দেহে একটা চমক। ইউটার্ন একটা। আমাদের দলীয় সিদ্ধান্ত ছিল ৩০ তারিখের যে নির্বাচন হয়েছে, সেটা কোনও নির্বাচন হয়নি। যে নির্বাচনের ভোট ২৯ তারিখের রাতে চুরি হয়ে গেছে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে। জনগণের ভোটের অধিকার ছিনিয়ে নিয়ে নির্বাচন হয়েছে। তখন জনগণের যে ক্ষোভ ছিল, সেই ক্ষোভের ধারাবাহিকতায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম— শপথ গ্রহণ করবো না। কিন্তু একটি কথা আমরা বিশ্বাস করি, কোনও সিদ্ধান্তই যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত থাকবে, এটা সবসময় সঠিক নয়। আমরা পরিষ্কারভাবে বলেছি, আমাদের ন্যূনতম যে সুযোগটুকু আছে সংসদে গিয়ে বলার, সেটা কাজে লাগাবো।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জোরেশোরে কয়টি চ্যানেল থেকে বলা হচ্ছে— আমি ব্যক্তিগতভাবে শপথ নেওয়ার জন্য সময় চেয়েছি, আবেদন করেছি। এটা একদম সিম্পল স্টেট কথা— আমি কোনও চিঠি দেইনি, কোন সময় চাইনি।’

তিনি বলেন, ‘আপনি বলতে পারেন— আপনার দলের সিদ্ধান্ত হলে, আপনি শপথ নেননি কেন। কারণ, এটাও দলের সিদ্ধান্ত। এটা আমাদের কৌশল। সেই কৌশলে আমি শপথ নেইনি। শপথের ব্যাপারে কোনও চিঠি দেইনি।’

আলোচনা সভায় জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, অধ্যাপক ড. শাহিদা রফিক এবং সেলিনা রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত