বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি

৩১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:২৩

সম্মেলনকে ঘিরে চাঙ্গা কমলগঞ্জ আওয়ামী লীগ

১৫ বছর পর আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর সম্মেলন

দীর্ঘ ১৫ বছর পর মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর।  দীর্ঘদিন পর সম্মেলনের আয়োজনে নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা।

সম্মেলনেকে সামনে রেখে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে গত বুধবার (২৮ আগস্ট) বিকেলে কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় আসন্ন সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বাদশাকে আহ্বায়ক এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সিদ্দেক আলীকে সদস্য সচিব করে সম্মেলন প্রস্তুতিমূলক একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর কমলগঞ্জ উপজেলা চৌমুহনাস্থ জেলা পরিষদ অডিটরিয়াম কাম মাল্টিপারপাস হলরুমে উপজেলা আওয়ামী লীগের বহুল প্রতিক্ষিত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এই সম্মেলনকে ঘিরে এখন কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতি চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। পদ-পদবী নিজেদের দখলে নিতে স্থানীয় নেতারা কেন্দ্রীয় ও জেলার নেতাদের পাশাপাশি তৃণমূলের কাউন্সিলারদের দ্বারে দ্বারে ধর্ণা দিচ্ছেন। দ্বিধাবিভক্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে ব্যাপক জল্পনা কল্পনা। কারা কারা হচ্ছেন প্রার্থী এ নিয়ে আলোচনা চলেছে। সবচেয়ে বেশি তৎপর দেখা যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে সরব সমর্থকরা। পদপদবী দাবী করে ছবি দিয়ে দলীয় ফোরামের দৃষ্টি আর্কষণ করছেন কেউ কেউ এবং কিছু কিছু জায়গায় ইতিমধ্যে সম্মেলন সম্পর্কিত ব্যানার-ফেস্টুনও টানানো হয়েছে। প্রার্থীতায় কোন কোন পরিবার থেকে একাধিক প্রার্থী হওয়ার আভাস দেখা যাচ্ছে।

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারে পর পর দুইদিনে দুটি শোকসভা, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে দেখানো হয়েছে কে কত লোক সমাগম করতে পেরেছে। এতে স্পষ্টত আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে দুটি গ্রুপের তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত সুত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটি দীর্ঘ দিন ধরে রয়েছে। কমিটি দীর্ঘদিন থাকার পরও দলকে গোছাতে পারেনি। ৩ বছর পর পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হওয়ার কথা থাকলেও দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে কোন সম্মেলন হয়নি, এমনকি এই সময়ের মধ্যে উপজেলার কোন ইউনিয়ন কমিটিও গঠন করতে পারেনি। দলের ভেতরে ভেতরে একাধিক গ্রুপের সৃষ্টি হয়েছে। যার কারণে দলীয় বিভিন্ন কর্মসুচীতে নানা অজুহাতে অনুষ্টানে অনেক নেতৃস্থানীয় নেতাদেরকে অনুপস্থিত থাকতে দেখা যায়। দলের এই অবস্থার পরিবর্তন চাচ্ছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করার জন্য নতুন নেতৃত্বের দাবী উঠেছে তৃণমূলে। তাদের দাবীর প্রেক্ষিতে সম্মেলনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের কমিটিতে পরিবর্তন আসছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের আসন্ন সম্মেলনে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে কারা প্রার্থী হচ্ছেন এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মুখে মুখে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হচ্ছেন- সভাপতি পদে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, সিনিয়র সহ সভাপতি অধ্যক্ষ মো. নুরুল ইসলাম, আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক বাদশা, সাবেক চেয়ারম্যান আছলম ইকবাল মিলন, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ছিদ্দেক আলী এবং সাধারণ সম্পাদক পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হচ্ছেন- জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. এএসএম আজাদুর রহমান আজাদ, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ মো. হেলাল উদ্দিন, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. জুয়েল আহমেদ, রহিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমদ বদরুল, অধ্যাপক হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, কমলগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান, শমশেরনগর ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ, পতনঊষার ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবু, উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের আহবায়ক সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোশাহীদ আলী প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত