বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:৩৮

গণভবনে জায়গা হয়নি যাদের

যুবলীগের আসন্ন কংগ্রেসকে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে প্রবেশের সুযোগ পাননি আওয়ামী যুবলীগের প্রভাবশালী চার কেন্দ্রীয় নেতা। রোববার বিকেল পাঁচটা থেকে এই বৈঠক শুরুর কথা।

এই চার নেতার প্রথমেই রয়েছেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। এছাড়া অন্য তিনজন হলেন সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুর রহমান মারুফ, নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এমপি ও আতিউর রহমান দিপু।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুবলীগের এই সাক্ষাতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ।

গণভবনে প্রবেশ করা এক একটি গণমাধ্যমকে জানান, বৈঠকে যারা থাকবেন তাদের তালিকা টানানো হয়েছে। ওই তালিকায় চার নেতার নাম নেই।

সংগঠনের নেতারা জানিয়েছেন, বিতর্কিত ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠায় তাদের বৈঠকে ডাকা হয়নি। অর্থাৎ এই চার নেতা গণভবনে নিষিদ্ধ হয়েছেন। তারা আগামীতে যুবলীগের কোনও কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত হতে পারবেন না। সংগঠনের জাতীয় কংগ্রেসেও তাদের সম্পৃক্ততা থাকবে না। তাদের দৃষ্টিতে, অতীতে আর কখনই সংগঠনের কংগ্রেসের আগে এই ধরণের বৈঠক হয়নি। কিছু নেতার বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ ভূমিকার কারণে বৈঠকটি হয়েছে।

সম্প্রতি যুবলীগের বিভিন্ন নেতার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা ও টেন্ডারবাজির অভিযোগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের পর থেকে সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর নামও উঠে আসে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার করা হয় যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ ভূঁইয়া, যুবলীগ নেতা জিকে শামীমসহ অনেকেই। যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সম্পৃক্ততাও বেরিয়ে আসে। ইতোমধ্যে ওমর ফারুক চৌধুরীর ব্যাংক হিসাব তলব করা ছাড়াও তার বিদেশ যাত্রার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এরপর থেকেই আড়ালে চলে যান ওমর ফারুক। জাতীয় কংগ্রেসকে সামনে রেখে সংগঠনটির চেয়ারম্যানকে গণভবনে ডাকেননি শেখ হাসিনাও।

আগামী ২৩ নভেম্বর যুবলীগের কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত