মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২৮ অক্টোবর, ২০১৯ ২০:১৬

কাদেরই উপদেষ্টা নিয়োগের চিঠি দিলেন হাজারীকে

আলোচিত-সমালোচিত আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল হাজারীকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা করা হয়েছে এমন সংবাদ নিয়ে একদফা বাকযুদ্ধের পর অবশেষে জয়নাল হাজারীর হাতেই নিজের সাক্ষরিত চিঠি তুলে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের সাক্ষরিত চিঠিটি সোমবার (২৮ অক্টোবর) তার হাতে তুলে দেওয়া হয়। হাজারী আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডির কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে চিঠি গ্রহণ করেন।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা সংগঠনের ২০তম সম্মেলনে (২২ ও ২৩ অক্টোবর ২০১৬ অনুষ্ঠিত) প্রদত্ত ক্ষমতা বলে জয়নাল হাজারীকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য করেন।

জয়নাল হাজারী শ্রম, মেধা ও প্রজ্ঞা দিয়ে সংগঠনে নতুন গতিবেগ সঞ্চারিত করতে সহায়তা করবেন বলে চিঠিতে আশা প্রকাশ করা হয়।

উপদেষ্টা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জয়নাল হাজারী বলেন, আমি এইমাত্র দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছ থেকে উপদেষ্টা হওয়ার চিঠিটি গ্রহণ করেছি।

এরআগে, ২ অক্টোবর গণভবনে অনুষ্ঠিত এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফেনীর আলোচিত নেতা ও আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য জয়নাল হাজারীকে দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য করার সিদ্ধান্তের কথা জানান। তবে, পরদিন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে হাজারীকে উপদেষ্টা করার বিষয়ে কিছু জানেন না বলে উল্লেখ করে বলেন, "আমার এ ধরনের খবর জানা নেই। খবর কোথা থেকে এলো, তাও জানি না। কে দিলো এই খবর, তাও জানি না। শুধু এটুকু জানি, ফেনী জেলা সম্মেলন হবে। একটা তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।"

ওবায়দুল কাদেরের এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় জয়নাল হাজারী ওইদিনই ফেসবুক লাইভে এসে তার উপদেষ্টা নিয়োগ প্রসঙ্গে 'বিভ্রান্তি দৃষ্টির পাঁয়তারা করা হচ্ছে' মন্তব্য করে বলেছিলেন, "রাজনীতি করতে হলে নাকি কিছু মিথ্যা কথা বলতে হয়। কিন্তু সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের কোনও মিথ্যা কথা বলেননি। তিনি বলেছেন, আমি কিছু জানি না। বলেছেন, আমার (ওবায়দুল কাদের) সঙ্গে আলোচনা হয়নি। এটা ঠিক এবং শতভাগ সত্য যে এটা নিয়ে নেত্রী কারও সঙ্গে আলোচনা করেননি। কারণ, কাউকে উপদেষ্টা পরিষদে রাখা, উপদেষ্টা করা এটা একান্তভাবে তার নিজস্ব এখতিয়ার। গত সম্মেলনে নেত্রীকে এই ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এটা অনেকটা নিয়োগ- কোনও ভোট বা কাউন্সিলের মাধ্যমে হওয়ার বিষয় নয়। আমার আগেও যাদের উপদেষ্টা কমিটিতে এনেছেন তাদের ক্ষেত্রেও এভাবে হয়েছে। কারও সঙ্গে আলোচনা করে তা করেননি।"

সাধারণত উপদেষ্টা পরিষদ বা সংগঠনের অন্য কোনও পদে কাউকে নিয়োগ বা মনোনয়ন দিলে দল থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়। তবে, প্রায় এক মাস আগে হাজারীকে উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য করার সিদ্ধান্ত হলেও এতদিন তাকে কোনও চিঠি দেওয়া হয়নি বা গণমাধ্যমকে জানানো হয়নি। সোমবারই তাকে চিঠি দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে উপদেষ্টা করার বিষয়টি জানানো হলো।

জয়নাল হাজারী ১৯৮৪ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ফেনী-২ (ফেনী সদর) আসন থেকে ১৯৮৬, ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে তিনবার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। তবে সংসদ সদস্য হিসেবে তার শেষ মেয়াদে বিভিন্ন বিতর্কে জড়ান জয়নাল হাজারী। দীর্ঘদিন তিনি রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় ছিলেন। ফেনী থেকে হাজারিকা নামে প্রকাশিত একটি দৈনিকের সম্পাদক হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করছেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত