আজ বৃহস্পতিবার, , ২১ জুন ২০১৮ ইং

স্পোর্টস ডেস্ক

১৩ জুন, ২০১৮ ১৪:৩৩

৩২ দলের যারা খেলছেন বিশ্বকাপ

বিশ্বকাপের একুশতম আসরে মাঠ বিশ্বের সেরা সেরা ফুটবলাররা।

বৃহস্পতিবার রাত নয়টায় উদ্বোধনী ম্যাচে সৌদি আরবের বিপক্ষে মাঠে নামবে স্বাগতিক রাশিয়া। ইতিমধ্যে ৩২ দলই রাশিয়ায় এসে পৌঁছেছে। প্রথম ম্যাচের ভেন্যুর কাছাকাছি জায়গায় অনুশীলন করছে দলগুলো।

আসুন দেখে নেই বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া ৩২টি দলের পূর্ণাঙ্গ স্কোয়াড।

গ্রুপ এ

রাশিয়া
গোলরক্ষক: ইগোর আকিনফিভ, ভ্লাদিমির গাবুলোভ, আন্দ্রে লুইনেভ।

রক্ষণভাগ: ভ্লাদিমির গ্রেনাত, ফেদোর কুদ্রাইয়াসহোভ, ইলা কুতেপোভ, আন্দ্রে সিমিনোভ, সের্গেই ইগনাশিভিচ, মারিও ফের্নান্দেস, ইগোর স্মোলনিকভ।

মাঝমাঠ: ইউরি গাজিনস্কি, আলেকজান্ডার গোলভিন, অ্যালান জিগোয়াভ, আলেকজান্ডার রখিন, ইউরি জিরকভ, ডেলার কুজিয়াভ, রোমান জোবনিন, আনেকজান্ডার সামেডোভ, আন্তন মিরানচুক, ডেনিস চেরিশিভ।

আক্রমণভাগ: আর্টেম জুবা, আলেক্সি মিরানচুক, ফেদরে সমোলোভ।

উরুগুয়ে
গোলরক্ষক: ফার্নান্দো মুসলেরা, মার্টিন সিলভা, মার্টিন কামপানা।

রক্ষণভাগ: মার্টিন ক্যাসেরাস, সেবাস্টিয়ান কোতেস, হোসে মারিয়া গিমেনেজ, দিয়েগো গোডিন, ম্যাক্সিমিলিয়ানো পেরেরা, গ্যাস্টন সিলভা, গুইলার্মো ভারেলা।

মাঝমাঠ: জিওর্জিয়ান ডি আরাসকায়েটা, রদ্রিগো বেনটানকার, দিয়েগো লাক্সাল্ট, নাহিটান নানডেজ, ক্রিস্টিয়ান রডরিগুয়েজ, কার্লোস সানচেজ, লুকাস টোরেইরা, মাটিয়াস ভেসিনো।

আক্রমণভাগ: এডিনসন কাভানি, ম্যাক্সিমিলিয়ানো গোমেজ, লুইস সুয়ারেজ, ক্রিস্টিয়ান স্টুয়ানি।

সৌদি আরব
গোলরক্ষক: মোহাম্মদ আল হারাবি, ইয়াসির আল মুসাইলেম, আব্দুল্লাহ আল-মায়ুফ।

রক্ষণভাগ: মনসুর আল-হারবি, ইয়াসির আল-শাহরানি, মোহাম্মদ আল-ব্রেইক, মোতাজ হাওসায়ি, ওসামা হাওসায়ি, ওমর হাওশাসায়ি, আলি আল বুলাইহি।

মাঝমাঠ: আব্দুল্লাহ আল খাইবারি, আব্দুল মালেক আল খাইবারি, আব্দুল্লাহ ওতায়েফ, তাইসির আল জসিম, হোসাইন আল মুগাহুই, সালমান আল ফরজ, মোহাম্মদ কানো, হাত্তান বাহেব্রি, সালেম আল দাওসারি, ইয়াহইয়া আল সেহরি।

আক্রমণভাগ: মোহাম্মদ আল শাহলাওয়ী, মুহান্নাদ আসসিরি, ফাহাদ আল মুয়াল্লাদ।

মিশর
গোলরক্ষক: এসাম এল হাদারি, মোহামেদ এল শেনাউই, শেরিফ একরামি।

রক্ষণভাগ: আহমেদ ফাতহি, সা’দ সামির, আয়মান আশরাফ, মাহমুদ হামদি, মোহামেদ আবদেল-শাফি, আহমেদ হেগাজি, আলি গাবর, আহমেদ এল মোহাম্মদি, ওমর গাবের।

মাঝমাঠ: তারেক হামেদ, শিকাবালা, আব্দাল্লাহ সাঈদ, সাম মুরসি, মোহামেদ এলনেনি, মাহমুদ কাহরাবা, রামাদান সোবহি, মাহমুদ হাসান, আমর ওয়ারাদা।

আক্রমণ: মারওয়ান মোহসেন, মোহাম্মদ সালাহ।

গ্রুপ বি:

স্পেন
গোলরক্ষক: পেপে রেইনা, ডেভিড ডি গিয়া, কেপা আরিজাবালাগা।

রক্ষণভাগ: নাচো ফার্নান্দেজ, সার্জিও রামোস, দানি কারভাজেল, জেরার্ড পিকে, জর্ডি আলবা, আলভারো ওদ্রিজোলা, নাচো মনরিয়েল, সেজার আজপিলিকোয়েটা।

মাঝমাঠ: আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, সার্জিও বুসকেটস, সওল নিগুয়েজ, কোকে, ইস্কো, মার্কো আসেনিসও, থিয়াগো আলকানতারা, ডেভিড সিলভা।

আক্রমণভাগ: ইয়াগো আসপাস, রদ্রিগো, ডিয়েগো কস্তা, লুকাস ভাজকেজ।

পর্তুগাল
গোলরক্ষক: অ্যান্থোনি লোপেজ, বেতো, রুই প্যাট্রিসিয়া।

রক্ষণভাগ: ব্রুনো আলভেজ, কেডরিক, হোসে ফন্তে, মারিও রুই, পেপে, রাফায়েল গুয়েরেইরো, রিকার্ডো পেরেরা, রুবেন দিয়াজ।

মাঝমাঠ: অ্যাদ্রিয়েন সিলভা, ব্রুনো ফার্নান্দেজ, হোয়াও মারিও, জোয়াও মুতিনহো, ম্যানুয়েল ফার্নান্দেজ, উইলিয়াম কার্ভালহো।

আক্রমণভাগ: আন্দ্রে সিলভা, বার্নার্ডো সিলভা, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, জেলসন মার্টিন্স, গনক্যালো গুয়েদেস, রিকার্ডো কারেসমা।

ইরান
গোলরক্ষক: আলিরেজা বিরানভান্দ, রাশিদ মাজাহেরি, আমির আবেদজাদেহ।

রক্ষণভাগ: আলি ঘোলিজাদেহ, মাজিদ হোসেইনি, মিলাদ মোহাম্মাদি, মোহাম্মাদ খানজাদেহ, মোর্তেজা পুরালিগাঞ্জি, পেজমান মোন্তাজেরি, রামিন রেজাইয়ান, রুজবেহ চেশমি।

মাঝমাঠ: এহসান হাজি সাফি, কারিম আনসাফিরাদ, মাসুদ শোজাই, মাহদি তোরাবি, ওমিদ ইব্রাহিমি, সাইদ ইজাতোলাহি।

আক্রমণভাগ: আলিরেজা জাহান বকশ, আশেকান দেজাগেহ, মাহদি তারেমি, রেজা গুচানেজাদ, সামান ঘুদ্দুস, সারদার আজমাউন, ভাহিদ আমিরি।

মরক্কো
গোলরক্ষক: মুনির এল কাজুই, ইয়াসিন বোনু, আহমাদ রেদা।

রক্ষণভাগ: মেহেদি বেনাটিয়া, রোমান সেইস, ম্যানুয়েল দ্য কস্তা, বাদ্র বেনোন, নাবিল দিরার, আশরাফ হাকিমি, হামজা মেন্দিল।

মাঝমাঠ: এমবার্ক বোসুফা, করিম এল আহমাদি, ইউসুফ আইত বেনাসের, সুফিয়ান আমরাবাত, ইউনুস বেলহানদা, ফ্যাকেল ফাজর, আমিন হারিত।

আক্রমণভাগ: খালিদ বোতাইব, আজিজ বোহাদ্দুজ, আইয়ুব এল কা’বি, নরদিন আমরাবাত, মেধি সারসেলা, হাকিম জিয়েচ।

গ্রুপ সি

ফ্রান্স
গোলরক্ষক: স্টিভ মানদান্দা, আলফোনসে আরিওলা, হুগো লরিস।

রক্ষণভাগ: লুকাস হার্নান্দেজ, প্রেসনেল কিমপেম্বে, বেঞ্জামিন মেন্দি, বেঞ্জামিন পাভার্ড, আদিল রামি, জিব্রিল সিদিবে, স্যামুয়েল উমতিতি, রাফায়েল ভারানে।

মাঝমাঠ: এনগুলো কান্তে, ব্লেইস মাতুইদি, স্টিভেন এনজোনজি, পল পগবা, ক্লোরেনতিন তোলিসো।

আক্রমণভাগ: ওসমান ডেম্বেলে, নাবিল ফেকির, অলিভার জিরু, আন্তোনিও গ্রিজম্যান, থমাস লেমার, কিলিয়ান এমবাপে, ফ্লোরিয়ান থাওভিন।

ডেনমার্ক
গোলরক্ষক: ফ্রেডেরিক রোনো, জোনাস লোসল, ক্যাসপার স্মেইচেল।

রক্ষণভাগ: আন্দ্রেস ক্রিস্টেনসেন, হেনরিক ডালসগার্ড, সিমন কেজায়ের, জেন্স স্ট্রেইগার লারসেন, ম্যাথিয়াস জার্গেনসেন, জ্যানিক ভেস্তেরগার্ড, জোনাস নুডসেন।

মাঝমাঠ: উইলিয়াম ভিতভেদ কেভিস্ট, থমাস ডেলানি, ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন, লুকাস লেরাগার, মিচেল ক্রন-দেলি, ল্যাস স্কোনে, পিওনে সিস্টো।

আক্রমণভাগ: নিকোলাই জারগেনসেন, ইউসুফ ইউরারি পউলসেন, ভিক্টর ফিসচার, ক্যাসপার ডলবার্গ, আন্দ্রেস কর্নেলাস, মার্টিন সি ব্র্যাথওয়েট।

পেরু
গোলরক্ষক: পেদ্রো গ্যালেস, কার্লোস ক্যাসেদা, হোসে কার্ভালো।

রক্ষণভাগ: আলবার্তো রদ্রিগেজ, ক্রিশ্চিয়ান রামোস, মিগুয়েল আরাউজো, অ্যান্ডারসন সান্তামারিয়া, লুইস অ্যাডভিনচুলা, অ্যাদো করজো, মিগুয়েল ত্রাউকো, নিলসন লয়োলা।

মাঝমাঠ: পেদ্রো অ্যাকুইনো, উইলডার ক্যার্টাগেনা, ইয়োশিমার ইয়োতুন, রেনাটো তাপিয়া, ক্রিশ্চিয়ান কিউয়েভা, পাওলো হার্তাদো, অ্যান্ডি পোলো, এডিসন ফ্লোরেজ।

আক্রমণভাগ: জেফারসন ফারফান, আন্দ্রে ক্যারিওলা, রাউল রুইদিয়াজ, পাওলো গুয়েরেরো।

অস্ট্রেলিয়া
গোলরক্ষক: ব্র্যাড জোন্স, ম্যাট রায়ান, ড্যানি ভুকোভিচ।

রক্ষণভাগ: আজিজ বেহিচ, মিয়োস দেগেনেক, ম্যাথু জুরম্যান, জেমস মেরেডিথ, জশ রিসডন, ট্রেন্ট সেইন্সবুরি।

মাঝমাঠ: জ্যাকসন আরভিন, মিলে জেদিনাক, রব্বি ক্রুস, ম্যাথু লেকি, মাসসিমো লুওংগো, মার্ক মিল্লিগান, অ্যারন মুয়ি, দিমিত্রি পেত্রাতোস, টমি জুরিক।

আক্রমণভাগ: ড্যানিয়েল আরজানি, টিম কাহিল, টনি জুরিক, জেমি ম্যাকলারেন, আন্ড্রু নাব্বাউট।

গ্রুপ ডি

আর্জেন্টিনা
গোলরক্ষক: নাহুয়েল গুজমেন, ফ্রাঙ্কো আরমানি, উইলি কাবায়েরো।

রক্ষণভাগ: গ্যাব্রিয়েল মারকাদো, ফেডেরিকো ফ্যাজিও, নিকোলাস ওটামেন্ডি, ক্রিস্টিয়ান আনসালদি, নিকোলাস ত্যাগলিয়াফিকো, মার্কোস রোহো।

মাঝমাঠ: এভার বানেগা, জাভিয়ার মাশ্চেরানো, এডুয়ার্ডো সালভিও, লুকাস বিলিয়া, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, জিওভানি লো সেলসো, এনজো পেরেস, ম্যাক্সিমিলিয়ানো মেজা, মার্কোস অ্যাকুনা।

আক্রমণভাগ: লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ান পাভোন, পাওলো দিবালা, সার্জিয়ো আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইন।

ক্রোয়েশিয়া
গোলরক্ষক: লভ্রে কালিনিচ, দানিজেল সুবাসিচ, দমিনিক লিভাকোভিচ।

রক্ষণভাগ: ভেদ্রান করলুকা, দোমাগোজ ভিদা, ইভান স্ট্রাইনিচ, দেজান লোভরেন, সিমে ভ্রাসালজকো, হোসেপ পাইভেরিচ, টিন জেডভাজ, মাতেজ মিত্রোভিচ, দুজে সেলেটা-কার।

মাঝমাঠ: লুকা মডরিচ, ইভান র্যা কিটিচ, মাতিও কোভাকিচ, মিলান বাডেলজ, মার্সেলো ব্রোজোভিচ, ফিলিপ ব্র্যাডারিচ।

আক্রমণভাগ: মারিও মানজুকিচ, ইভান পারিসিচ, নিকোলা কালিনিচ, আন্দ্রে ক্রামারিচ, মার্কো পিজাকা, আন্তে রেবিচ।

আইসল্যান্ড
গোলরক্ষক: হ্যানেস থর হ্যালডরসন, রুনার অ্যালেক্স রুনারসন, ফ্রেডেরিক স্ক্রাম।

রক্ষণভাগ: ক্যারি আরনার্সন, অ্যারি ফ্রেয়ার স্কুলাসন, বিরকির মার সায়েভারসন, এসভেরির ইনগি ইগাসন, হোর্ডার ম্যাগনাসন, হোলমার ওর্ন আইজলফসন, রেগনার সিগার্ডসন।

মাঝমাঠ: জোহান বার্গ গুডমান্ডসন, বিরকির জারনাসন, অ্যারনর ইংভি ট্রস্টাসন, এমিল হ্যালফ্রেডসন, জিলফি সিগার্ডসন, ওলাফুর ইঙ্গি স্কুলাসন, রুরিক জিলাসন, স্যামুয়েল ফ্রিডজনসন, অ্যারোন গানারসন।

আক্রমণভাগ: আলফ্রেড ফিনবোগাসন, বোজর্ন বার্গম্যান সিগার্ডাসন, জন ডেডি বোদভার্সন, আলবার্ট গুডমান্ডসন।

নাইজেরিয়া
গোলরক্ষক: ফ্রান্সিস উঝো, ইকেচু এজেনওয়া, ড্যানিয়েল আকপি।

রক্ষণভাগ: এলডারসন ইচিজি, কেনেথ অমেরো, উইলিয়াম ট্রোস্ট একন, লিওন বালোগান, শেহু আব্দুল্লাহি, টাইরন ইবুই, চিদোজি ওয়াজিম, ব্রায়ান ইদু।

মাঝমাঠ: ওঘনেকার ইতেব, জন অবি মিকেল, উইলফ্রেড দিদি, ওগেনি ওনাজি, জন ওগু, জোয়েল অবি।

আক্রমণভাগ: ভিক্টর মোসেস, আহমেদ মুসা, ওডিওন ঘালো, কেলেচি হেনাচো, সিমিওন ওয়াংকো অ্যালেক্স অবি।

গ্রুপ ই

ব্রাজিল
গোলরক্ষক: অ্যালিসন, এডারসন, ক্যাসিও।

রক্ষণভাগ: মার্সেলো, ড্যানিলো, ফিলিপে লুইস, ফ্যাগনার, মারকুইনহস, থিয়াগো সিলভা, মিরান্দা, পেদ্রো।

মাঝমাঠ: উইলিয়ান, ফার্নান্দিনহো, পাউলিনহো, ক্যাসেমিরো, ফিলিপে কুটিনহো, রেনাতো অগাস্তো, ফ্রেড।

আক্রমণভাগ: নেইমার, গ্যাব্রিয়েল জিসাস, রবার্তো ফিরমিনো, ডগলাস কস্তা, টেইসন।

সুইজারল্যান্ড
গোলরক্ষক: রোমান ব্যুরকি, ইভোন এমভোগো, ইয়ান সোমার;

রক্ষণভাগ: মানুয়েল আকানি, ইয়োহান জোওরু, নিকো এলভেডি, মাইকেল ল্যাং, স্টেফান লিচস্টাইনার, জ্যাক ফ্রান্সিস মুবঞ্জ, রিকার্দো রোদ্রিগেস, ফাবিয়ান শিয়ার;

মাঝমাঠ: ভ্যালন বেহরামি, ব্লেরিম জেমাইলি, গেলসন ফার্নান্দেস, রেমো ফ্রিউলার, জের্দার শাকিরি, গ্রান্ট জাকা, স্টিভেন জুবের, ডেনিস জাকারিয়া;

আক্রমণভাগ: ইয়োসিফ দ্রিমিচ, ব্রেল এমবোলো, মারিও গাভ্রানোভিচ, হারিস সেফেরোভিচ।

কোস্টারিকা
গোলরক্ষক: কিলর নাভাস, প্যাট্রিক পেমবেরটন, লিওনেল মোরিরা।

রক্ষণভাগ: ক্রিশ্চিয়ান গাম্বোয়া, ইয়ান স্মিথ, রোনাল্ড মাতারিতা, ব্রায়ান ওভিডো, অস্কার ডুয়ার্ট, জিয়ানকার্লো গঞ্জালেস, ফ্রান্সিস্কো ক্যালভো, কেন্ডাল ওয়াটসন, জনি আকস্তা।

মাঝমাঠ: ডেভিড গুজমান, ইলেৎসিন টেজেদা, সেলসো বরগেস, র্যা ন্ডাল অ্যাজোফেইফা, রোডনি ওয়ালেস, ব্রায়ান রুইজ, ড্যানিয়েল কলিড্রেস, ক্রিশ্চিয়ান বোলানোস।

আক্রমণভাগ: জোহান ভেনেগাস, জোয়েল ক্যাম্পবেল, মার্কো ইউরেনা।

সার্বিয়া
গোলরক্ষক: ভ্লাদিমির স্তোইকোভিচ, প্রেদ্রাক রাইকোভিচ, মার্কো দিমিত্রোভিচ;

রক্ষণভাগ: আন্তোনিও রুকাভিনা, দুস্কো তোসিচ, উরোস স্পাইচ, ব্রানিস্লাভ ইভানোভিচ, আলেকসান্দার কোলারভ, মিলোস ভেলিকোভিচ, মিলান রোদিচ, নিকোলা মিলেনকোভিচ।

মাঝমাঠ: লুকা মিলিভোয়েভিচ, আন্দ্রিয়া জিভকোভিচ, দুসান তাদিচ, মার্কো গ্রুইচ, ফিলিপ কোসতিচ, সের্গেই মিলিনকোভিচ-সাভিচ, নেমাঞ্জা মাতিচ, আদেম লিয়াইক।

আক্রমণভাগ: আলেকসান্দার প্রিয়োভিচ, আলেকসান্দার মিত্রোভিচ, নিমাঞ্জা রাদোনিচ, লুকা ইয়োভিচ।

গ্রুফ এফ

জার্মানি
গোলরক্ষক: ম্যানুয়েল ন্যয়ার, কেভিন ট্রাপ, মার্ক-আন্দ্রে টেরস্টেগেন।

রক্ষণভাগ: মারভিন প্লাট্টেনহার্ড, জোনাস হেক্টর, ম্যাথিয়াস গিন্টার, ম্যাটস হামেলস, নিকোলাস সুলে, অ্যান্তোনিও রুডিগার, জেরোমে বোয়াটেং, জোসুয়া কিমিচ।

মাঝমাঠ: সামি খেদিরা, উলিয়ান ড্র্যাক্সলার, টনি ক্রুস, মেসুত ওজিল, মার্কো রিয়াস, লিওন গোরেৎজকা, সেবাস্তিয়ান রুডি, উলিয়ান ব্র্যান্ডৎ, এলকে গুন্ডুগান।

আক্রমণভাগ: টিমো ভার্নার, টমাস মুলার, মারিও গোমেজ।

সুইডেন
গোলরক্ষক: রবিন ওলসেন, ক্রিস্টোফার নোর্ডফেল্ড, কার্ল ইয়োজান জনসন।

রক্ষণভাগ: আন্দ্রেস গ্রানকিভিস্ট, ভিক্টর নিলসন লিন্ডেলফ, মাইকেল লাস্টিং, লুডউইগ আগাসটিনসন, পনটাস জানসন, এমিল ক্রাফথ, ফিলিপ হেলান্ডার, মার্টিন ওলসন।

মাঝমাঠ: সেবাস্টিন লারসন, গুস্তাভ সেভেনসন, আলবিন একডাল, এমিল ফোর্সবার্গ, ভিক্টর ক্লায়েসন, জিমি ডারমাজ, মার্কোস রোহডেন, ওস্কার হিলজেমার্ক।

আক্রমণভাগ: মার্কোস বার্গ, জন গুইডেট্টি, ইসান কিয়েস-থেলিন, ওলা টোইভোনেন।

মেক্সিকো
গোলরক্ষক: গুইলের্মো ওচোয়া, আলফ্রেডো তালাভেরা, হেসুস করোনা।

রক্ষণভাগ: কার্লোস স্যালসেদো, দিয়েগো রেয়েস, হেক্টর মোরেনো, হুগো আয়ালা, এডসন আলভারেজ, হেসুস গ্যালার্ডো, মিগুয়েল, লাইয়ুন।

মাঝমাঠ: রাফায়েল মার্কুয়েজ, হেক্টর হেরেরা, জোনাথন ডস সান্তোস, জিওভানি ডস সান্তোস, আন্দ্রেস গুয়ার্দাদো, মার্কো ফ্যাবিয়ান।

আক্রমণভাগ: হ্যাভিয়ের হার্নান্দেজ, রাউল জিমেনেজ, ওরিবে পেরালতা, হিসুস ম্যানুয়েল করোনা, কার্লোস ভেলা, হ্যাভিয়ের অ্যাকুইনো, হার্ভিং লোজানো।

দক্ষিণ কোরিয়া
গোলরক্ষক: কিম সিউং গায়, কিম জিন ইউন, চো হিউন ও।

রক্ষণভাগ: লি ইয়ং, জং সিংইউন, ওহ বানসুক, উন ইয়েংসন, পার্ক জো হু, কিম মিনউ, হাং চুল, জ্যাং হিউন সু, গো ইয়ুহান, কিম ইয়ং উন।

মাঝমাঠ: জু সিজং, লি সিউংউ, কো জা সল, জং উ ইয়ং, কি সুয়াং ইয়ং, লি জাই সুং, মুন সুনমিন।

আক্রমণভাগ: কিম শিন উক, সন হিউং মিন, ওয়াং হি চান।

গ্রুপ জি

ইংল্যান্ড
গোলরক্ষক: জর্ডান পিকফোর্ড, নিক পোপ, জ্যাক বাটল্যান্ড।

রক্ষণভাগ: কাইল ওয়াকার, কিয়েরান ট্রিপায়ার, ট্রেন্ট অ্যালেক্সজান্দার-আর্নল্ড, গ্যারি চাহিল, ড্যানি রোজ, জন স্টোনস, হ্যারি মাগুইরে, ফিল জোন্স, অ্যাশলে ইয়াং।

মাঝমাঠ: এরিক ডায়ার, ফ্যাবিয়ান ডেলফ, জর্ডান হেন্ডারসন, ডেলে আলি, রুবেন লোফটাস-চিক, রাহিম স্টারলিং, জেসে লিংগার্ড।

আক্রমণভাগ: হ্যারি কেন, জেমি ভার্ডি, মার্কাস রাসফোর্ড, ড্যানি ওয়েলব্যাক।

বেলজিয়াম
গোলকিপার: থিবো কর্তোয়া, সাইমন মিগনোলেট, কুন কাস্তিল।

রক্ষণভাগ: টবি অ্যালডারউইয়ারল্ড, ডেডির্ক বোয়াতা, থমাস ভারমালেন, জ্যান ভেরতোজেন, লিন্ডার ডেনডোঙ্কার, ভিনসেন্ট কম্পানি, থমাস মিউনার।

মাঝমাঠ: নাসের চাদলি, এডেন হ্যাজার্ড, থরগান হ্যাজার্ড, মারোন ফেলাইনি, আদনান ইয়ানুজাই, মুসা দেম্বেলে, ইউরি তিলেমান, অ্যাক্সেল উইটজেল, কেবিন ডি ব্রুইন।

আক্রমণভাগ: ইয়ানিক কারাসো, রোমেলু লুকাকু, ড্রাইস মারটেন, মিচি বাতশুই।

পানামা
গোলরক্ষক: হোসে ক্যালদেরন, জেইম পেনেদো, অ্যালেক্স রদ্রিগেস

রক্ষণভাগ: ফিলিপ ব্যালয়, হ্যারল্ড কামিংস, এরিক ডেভিস, ফিদেল এস্কোবার, অ্যাডলফ মাকাদো, মিচেল মুরিলো, লুইস ওভালে, রোমান তোরেস

মাঝমাঠ: এডগার বারকেনেস, আরমান্ডো কুপার, আনিবাল গোডোয়, গ্যাব্রিয়েল গোমেস, ভ্যালেন্টিন পিমেন্টেল, আলবার্তো কুইনটেরো, হোসে লুইস রদ্রিগেস

আক্রমণভাগ: আবডিয়েল আরোয়ো, ইসমাইল দিয়াজ, ব্লাস পেরেস, লুইস তেজাদা, গ্যাব্রিয়েল তোরেস।

তিউনিশিয়া
গোলরক্ষক: আয়মেন আল মাথলুথি, মুয়েজ হাসেন, ফারুক বেন মুস্তাফা।

রক্ষণভাগ: নাগুয়েজ হামদি, ডিলান ব্রোন, রামি বেদুই, ইয়োহান বেনালুয়ান, সিয়াম বেন ইউসেফ, ইয়াসিন মেরিয়াহ, উসামা হাদ্দাদি ও আলি মালাউল।

মাঝমাঠ: ইলিয়াস সিখরি, মোহাম্মদ আমিন বেন আমোর, ঘেইলিন ছালালি, ফারজানি সাসি, আহমেদ খলিল, সাইফেদ্দিন আল খাউরি।

আক্রমণভাগ: ফখরেদ্দিন বেন ইউসেফ, আনিস বদ্রি, বাশেম শ্রারফি, ওয়াহবি খাজরি, নাইম স্লিতি ও সাবের খলিফা।

গ্রুপ এইচ

পোলান্ড
গোলরক্ষক: বার্তোজ বিয়ালকোওসকি, লুকাস ফ্যাবিয়ান্সকি ও ওজসিয়েচ সাজেসনি।

রক্ষণভাগ: জ্যান বেডনারেক, বার্তোজ বেরেসজিন্সকি, থিয়াগো কিয়োনেক, কামিল গুিল্ক, লুকাস পিজেক, আর্তুর ইয়েনজেচিক ও মাইকেল পাজদান।

মাঝমাঠ: জাকুব ব্লাসেসকোস্কি, জাসেক গোরালস্কি, কামিল গ্রোসিকি, গ্রজেগর্জ ক্রিকোওইয়াক, রাফায়েল কুরজাওয়া, কারোল লিনেট্টি, মাসিয়েজ রাইবাস, পিতর জিলিনস্কি ও স্লাওমির পেশকো।

আক্রমণভাগ: রবার্ট লেভানডোস্কি, দাওয়িদ কোওনক্কি, আর্কাডিউস মিলিক ও লুকাসজ টিওডোরকজিক।

সেনেগাল
গোলরক্ষক: আবদোলাই দিয়ালো, আলফ্রেড গোমিস, খাদিম দিয়াই।

রক্ষণভাগ: লামিন গাসামা, সালিউ সিস, কালিদু কোলিবালি, কারা বোদি, ইউসুফ সাবালি, সালিফ সানে, মুসা ওয়াগ।

মাঝমাঠ: ইদ্রিসা গুইয়ে, চেইখো কোয়েত, আলফ্রেড দিয়াই, বাদো দিয়াই, চেইখ দোয়ে, ইসমাইলা সার।

আক্রমণভাগ: কেইটা বালদে, মামে বিরাম দিউফ, মুসা কোনাতে, সাদিও মানে, এমবায়ে নিয়াং, দিয়াফ্রা সাখো, মুসা সো।

জাপান
গোলরক্ষক: এইজি কাওয়াশিমা, মাসাকি হিগাশিগুচি, কোসুকে নাকামুরা।

রক্ষণভাগ: ইয়ুতো নাগাতোমো, তোমোয়াকি মাকিনো, ওয়াতারু এন্দো, মায়া উয়োশিদা, হিরোকি সাকাই, গোতোকু সাকাই, জেন শোজি, নাওমিচি উদেয়া।

মাঝমাঠ: মাকোতো হাসিবে, কেইসুকে হোন্ডা, তাকাশি ইনুয়ি, শিনজি কাগাওয়া, হোতারু ইয়ামাগুচি, গেংকি হারাগুচি, তাকাশি উসামি, গাকু শিবাসাকি, রিয়োতা ওশিমা।

আক্রমণভাগ: শিনজি ওকাজাকি, ইয়ুইয়া ওসাকো, ইয়োশিনোরি মুতো।

কলম্বিয়া
গোলরক্ষক: ডেভিড ওসপিনা, ক্যামিলিও ভারগাস, হোসে ফার্নান্দো কুয়াদরাদো।

রক্ষণভাগ: ক্রিস্টিয়ান জাপাটা, ডেভিনসন সানচেজ, সান্তিয়াগো আরিয়াস, অস্কার মুরিল্লো, ফ্রাঙ্ক ফাবরা, জোহান মোজিকা, ইয়েরি মিনা।

মাঝমাঠ: উইলিমার ব্যারিওস, কার্লোস সানচেজ, জেফারসন লারমা, হোসে ইজকুয়ের্দো, হামেস রদ্রিগেজ, অ্যাবেল আগুইলার, মাতিয়ুস উরিবে, ইয়েম্মি ছারা, হুয়ান ফার্নান্দো কুইনতেরো, হুয়ান কুয়াদরাদো।

আক্রমণভাগ: রাদামেল ফ্যালকাও, মিগুয়েল বোরজা, কার্লোস বাক্কা, লুইস ফার্নান্ডো মুরিয়েল।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত