সোমবার, , ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

স্পোর্টস ডেস্ক

১১ জুলাই, ২০১৮ ১৭:০৮

ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে রাতে মুখোমুখি ক্রোয়েশিয়া-ইংল্যান্ড

বেলজিয়ামকে প্রথম সেমি ফাইনালে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালের মঞ্চে পা রেখেছে ফ্রান্স। ১৫ জুন মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে লড়াইয়ে নামার জন্য এখন তৈরি হবে দিদিয়ের দেশমের দল। কিন্তু শিরোপার মঞ্চে প্রতিপক্ষ হিসেবে কাদের পাচ্ছে দলটি? বুধবার দ্বিতীয় সেমি ফাইনালে মিলবে সেই জবাব। যেখানে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে ক্রোয়েশিয়া। মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে বুধবারের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায়।

ইংল্যান্ড ২৮ বছর পর সেমিফাইনালে এসেছে। অন্যদিকে ২০ বছর পর এসেছে ক্রোয়েশিয়া। ইংল্যান্ড দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে যাওয়ার অপেক্ষায় আছে। অন্যদিকে প্রথমবারের মতো ফাইনালে যেতে মুখিয়ে ক্রোয়েশিয়া। এর আগে ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া সাতবার মুখোমুখি হলেও বিশ্বকাপে এবারই তাদের প্রথম দেখা।

প্রথমবার অংশ নিয়েই হৈচৈ ফেলে দিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে তারা উঠে গিয়েছিল সেমিফাইনালে। কিন্তু সেমিফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে হেরে বিদায় নিয়েছিল তারা। এরপর গেল চার আসরে অংশ নিয়ে একবারও আর সেমিফাইনালের দেখা পায়নি। ২০ বছর পর তারা আবার সেমিফাইনালে এসেছে। অবশ্য নকআউট পর্বে কঠিন পথ পাড়ি দিতে হয়েছে তাদের। শেষ ষোলোতে ডেনমার্কের বিপক্ষে টাইব্রেকারে জেতার পর কোয়ার্টার ফাইনালে রাশিয়ার বিপক্ষেও তারা টাইব্রেকারে জয় পায়। শেষ দুই ম্যাচে তাদের খেলতে হয়েছে ২৪০ মিনিট!

অন্যদিকে ইংল্যান্ডও কঠিন চ্যালেঞ্জ উতরে এসেছে সেমিফাইনালে। শেষ ষোলোতে কলম্বিয়া তাদের কঠিন পরীক্ষা নেয়। টাইব্রেকার নামক ভাগ্য পরীক্ষায় তারা কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে আসে। শেষ আটে সুইডেনকে সহজেই হারিয়ে নিশ্চিত করে সেমিফাইনাল।

ক্রোয়েশিয়া শিরোপাশূন্য হলেও ইংল্যান্ডের ঝুলিতে একটি শিরোপা রয়েছে। তবে সেটা ৫২ বছর আগে। ১৯৬৬ বিশ্বকাপে ঘরের মাঠে তারা শিরোপা জিতেছিল। এরপর বেশ কয়েকটি আসরের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে ইংল্যান্ড।

সবশেষ তারা ১৯৯০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছিল। ইতালির কাছে হেরে দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে ওঠা হয়নি তাদের। ২৮ বছর পর আবার সেমিফাইনালে উঠেছে ইংলিশরা।

এ নিয়ে অষ্টমবারের মতো মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দল দুটি। আগের সাতবারের দেখায় জয়ের পাল্লা ইংল্যান্ডের দিকেই ভারী। চারবার জিতেছে ইংল্যান্ড। দুইবার ক্রোয়েশিয়া। একটি ম্যাচে কেউ জেতেনি।

এর আগে ২০০৪ ইউরোতে তাদের দেখা হয়েছিল। সেখানে ক্রোয়াটসদের ৪-২ গোলে হারিয়েছিল থ্রি লায়ন্সরা।  আজও কী তারা জয়ের দেখা পাবে? নাকি তাদের হারিয়ে প্রথমবারের মতো ফাইনালে জায়গা করে নিবে মদ্রিচ-রাকিটিচদের ক্রোয়েশিয়া?

ক্রোয়েশিয়ার রাইট-ব্যাক সিমে ভারসালজকো হাঁটুর ইনজুরিতে ভুগছেন। তিনি এই ম্যাচে খেলতে পারবেন না। রাশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে গোলরক্ষক দানিজেল সুভাসিচ হ্যামস্ট্রিং এর ইনজুরিতে পড়েছিলেন। তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। ইংল্যান্ড দলে অবশ্য ইনজুরির সমস্যা নেই। মঙ্গলবার গ্যারেথ সাউথগেট ২৩ জনকেই অনুশীলন করিয়েছেন। ১৯৬৬ সালের পর ফাইনালে উঠতে হলে ক্রোয়েশিয়ার মিডফিল্ডকে পরাস্ত করতে হবে হ্যারি কেন- ডেলে আলীদের।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত