বুধবার, , ১৭ অক্টোবর ২০১৮ ইং

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৮:৪৮

গরমে কাহিল মোস্তাফিজকে বল করতে উজ্জীবিত করেন মাশরাফি

পাঁচ ওভার বল করার পর অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে আর বোলিং করতে পারবেন না বলে জানিয়েছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। গরমে কাহিল মোস্তাফিজকে মাশরাফি পরে উজ্জীবিত করেছেন বল করতে। তার বোলিং মুন্সিয়ানাতেই রোমাঞ্চকর ম্যাচ জেতে বাংলাদেশ।

আবুধাবির প্রচণ্ড গরমে পানিশূন্যতা, ক্রাম্প। শরীর যেন চলছিলই না তার। তবে ম্যাচ শেষ দিকে যেতে দরকার পড়ে তার বোলিংয়ের। শেষ পর্যন্ত তার বোলিং জাদুতেই ম্যাচটা বাংলাদেশ নিজেদের পকেটে পুরে।

সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে মুখচোরা মোস্তাফিজ শুনিয়েছেন ওই পরিস্থিতির কথা।

তিনি বলেন, ‘ভাই (মাশরাফি) আমাকে একটা কথা বলছিল যে তোর বোলিং করা লাগবেই। মাঝখানে ৩ ওভার বোলিংয়ের সময় ভাইকে বলেছি যে পায়ে লাগছে। ভাই তখন বলেছেন যে তুই রেস্ট নে। শেষে করবি আবার। আমি বলছি যে ভাই ঠিক আছে, যেভাবে পারি করব।’

বোলিং করার জন্য রানআপে দৌড়ের গতিও কমাতে হয়েছিল জানিয়ে মোস্তাফিজ বলেন, ‘রান আপে বেশি জৌরে দৌড়ালে আমার পায়ে টান লাগছিল। আমি এজন্য এমন ভাবে দৌড়ালাম যেন পায়ে না লাগে। ওভাবেই বোলিং করছি।’

করবেন না করবেন না করেও মোস্তাফিজ বল করেছেন আরও চার ওভার। কারণ একাদশে আছেন মাত্র দুজন পেসার। তারমধ্যেও পেশিতে টান পড়ে মাঠেই শুশ্রূষা নিতে হয়েছে। উঠে দাঁড়িয়ে মোস্তাফিজ আসল কাজটি করেছেন শেষ ওভারে।

মোস্তাফিজের কাছে আবুধাবির গরমটা লেগেছে বেশি। মাঠের চারপাশেই মরুভূমি। উত্তাপ তাই গায়ে লাগে বেশি। গরম দলের প্রায় সবারই কাহিল অবস্থা হয়েছিল বলে জানান মোস্তাফিজ। তিনি বলেন, ‘দুবাই মাঠ থেকে ওখানে (আবুধাবিতে) গরম একটু বেশি। সবারই প্রায় কষ্ট হয়েছে গরমে। অনেক ঘেমেছে সবাই। ক্র্যাম্প করছিল। আমার না শুধু, অনেকেরই। সবার অনেক কষ্ট হয়ে গেছে। কষ্টের ফলে জেতাটা স্বস্তি দিয়েছে।’

শেষ ওভারে হাতে ৪ উইকেট নিয়ে ৬ বলে ৮ রান দরকার ছিল আফগানিস্তানের। মোস্তাফিজ ওই ওভার থেকে দেন মাত্র ২ রান। লেগ বাই থেকে আসে আরও ২ রান। বাংলাদেশ ম্যাচ জেতে ৩ রানে।

ম্যাচ জেতায় ফাইনালে উঠার পথে এখন সহজ সমীকরণের সামনে বাংলাদেশ।


আপনার মন্তব্য

আলোচিত