শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯ ইং

স্পোর্টস ডেস্ক

১৫ মার্চ, ২০১৯ ১২:০৬

নিজেদের 'ভীষণ ভাগ্যবান' বললেন মুশফিক

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছের একটি মসজিদে শুক্রবার সকালে সন্ত্রাসী হামলায় হয়। এদিকে আজ জুম্মার নামাজ পড়ার উদ্দেশ্যে ক্রাইস্টচার্চের সেই মসজিদেই যাচ্ছিলেন তামিম ইকবালসহ বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের একাধিক সদস্য। তবে মসজিদে প্রবেশের আগেই গুলির আওয়াজ শুনে ও স্থানীয় বাসিন্দাদের কথায় দ্রুত ওই স্থান ত্যাগ করেন তারা।

পরে বাংলাদেশ দলের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম টুইট করে বলেন, 'আলহামদুল্লিলাহ। ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলা থেকে আল্লাহ আমাদের বাঁচিয়েছেন। আমরা খুবই ভাগ্যবান। জীবনে আর এমন ঘটনার দেখতে চাই না। দোয়া করবেন আমাদের জন্য।'

টুইটার ও ফেসবুকে বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল ভয়ঙ্কর সেই ঘটনা নিয়ে টুইট করেছেন। নিজেদের নিরাপদে থাকার কথা জানিয়েছেন, 'পুরো দল সন্ত্রাসী হামলা থেকে রক্ষা পেয়েছে। ভয়ঙ্কর এক অভিজ্ঞতা। আমাদের জন্য দোয়া রাখবেন।'

সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সেখানে কয়েকজন নিহত হয়েছেন। কিন্তু হতাহতের সংখ্যা নির্ধারণ করে কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এছাড়া গোলাগুলির সময় বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা মসজিদে ছিলেন না বলেও জানা গেছে। তারা নামাজ আদায়ের জন্য আল নূর মসজিদের কাছে ছিলেন।

বাংলাদেশ দলের কোচিং স্টাফের একজন মারিও ভিল্লাভারানে বলেন, 'ক্রিকেটাররা মানসিকভাবে একটু বিপর্যস্ত। আমি তাদের সঙ্গে অল্প কথা-বার্তা বলেছি। তারা ভালো আছেন। তারা গোলাগুলি স্বচক্ষে দেখেননি। তবে গুলির শব্দ শুনেছেন। অনুশীলন শেষ করে মসজিদের পথে তারা তখনই ওই ঘটনা ঘটেছে।' বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মুখপাত্র জালার ইউসুফ এএফপি'কে জানান, 'ক্রিকেটাররা নিরাপদে আছে। আমরা তাদের হোটেল থেকে বের না হতে বলেছি।'

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছে একটি মসজিদ আছে। সেখানে নামাজের জন্য যান বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার তামিম-মুশফিকরা। স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে আল নূর নামের ওই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা হয়। এতে ২৭ ব্যক্তির মৃত্যু হয়। অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। তবে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত তারা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত