শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ইং

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ১৫:৪১

দেশের ক্রিকেট ঠিক পথে নেই, সাকিব-তামিমদের সংবাদ সম্মেলন

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অসন্তোষ জানিয়ে সব ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন দেশের ক্রিকেটাররা।

নানান ইস্যুতে চাপা ক্ষোভ ছিল দীর্ঘদিন ধরে। সেটারই বিস্ফোরণ ঘটলো এবার।

ঘরোয়া ক্রিকেটে পারিশ্রমিক বাড়ানো, ক্রিকেটারদের প্রতি বোর্ডের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো সহ মোট ১১ দফা দাবিতে ধর্মঘট ডেকেছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। তাদের সাফ কথা- দেশের ক্রিকেট ঠিক পথে নেই।

সোমবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই ঘোষণা দেন ক্রিকেটাররা।

দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট খেলা, ক্যাম্প, অনুশীলন থেকে বিরত থাকবেন জাতীয় ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হিসেবে সাকিব জানিয়েছেন, দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরণের ক্রিকেট কার্যক্রমে অংশ নেবেন না ক্রিকেটাররা।

যেহেতু অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সামনে বিশ্বকাপ আছে, তাই তাদেরকে এই ধর্মঘটের আওতায় রাখা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সাকিব।

সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, ‘বিপিএল, ডিপিএল কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের পারিশ্রমিক আগের মতো বাড়ানো হচ্ছে না। আমরা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় খেলতে যাচ্ছি, টিম হোটেলে থাকছি। ন্যূনতম আমাদের যাতায়াতের ভালো ব্যবস্থা রাখা উচিত। হোটেলের জিম ব্যবস্থা, সুইমিং পুল ব্যবস্থা থাকতে হবে। এটা একজন পেশাদার ক্রিকেটারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

সাকিব বলেন, 'আমরা সবাই চাই ক্রিকেটের উন্নতি হোক। আমাদের ক্রিকেটারদের মধ্যে কেউ তিন-চার বছর খেলবে, কেউ দশ বছর আছে। যারা ভবিষ্যতে ক্রিকেটে আসবে, তাদের জন্য আমরা একটা ভালো পরিবেশ রেখে যেতে চাই। যেন যেখান থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট সামনে এগিয়ে যায়।'

তামিম ইকবাল বলেন, ‘আমরা শুধু ক্রিকেট নিয়েই পড়ে থাকি। কিন্তু যদি একজন গ্রাউন্ডসম্যানের পারিশ্রমিকের কথা বলেন, সেটা কিন্তু বাড়ানো হচ্ছে না। তারা মাসে মাত্র ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পান। আমরা বাংলাদেশি কোচ প্রমোট করতে পারছি না। বাংলাদেশের ২০ জন কোচের সমান পারিশ্রমিক পান বিদেশি একজন কোচ। এছাড়া, দেশি একজন কোচের পারফর্ম ভালো হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাকে পরের ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হয় না।’

চুক্তিভুক্ত খেলোয়াড়দের সংখ্যা বাড়ানো। খেলোয়াড়দের বেতন বৃদ্ধি, বিসিবির গ্রাউন্সম্যান থেকে শুরু করে অন্যান্য বেতনভুক্ত কর্মীদের আর্থিক নিরাপত্তা বৃদ্ধি এই ১১ দফা দাবির মধ্যে আছে। এর পাশাপাশি আছে ঘরোয়া ক্রিকেট বিশেষ করে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেটে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা অনিয়ম ও দুর্নীতির অবসান। ঘরোয়া ক্রিকেটের টুর্নামেন্টের সংখ্যা বাড়ানোর দাবিও করেছেন আন্দোলনরত ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেটারদের এই ঘোষণার পর আগামী ২৪ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগের তৃতীয় রাউন্ড এবং ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাওয়া জাতীয় দলের ক্যাম্প কার্যত অনিশ্চয়তার মুখে পড়ল।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাকিব, তামিম, মাহমুদউল্লাহ, মিরাজ, ইমরুল, সৌম্য, মুশফিক, সাইফউদ্দিন, এনামুল বিজয়, মুমিনুল, মিঠুন, জুনায়েদ সিদ্দিকী, নুরুল হাসান সোহান, রনি তালুকদার, শফিউল ইসলাম, তাসকিন, মোস্তাফিজরা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত