মঙ্গলবার, , ২০ নভেম্বর ২০১৮ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ১৯:২৪

জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা পর্যন্ত হচ্ছে ‘মডেল সড়ক’

সিলেট নগরীর অন্যতম প্রধান সমস্যা ফুটপাতজুড়ে হকারদের দৌরাত্ম। নগরীর সড়কগুলোর ফুটপাতের প্রায় পুরোটা হকারদের দখলে চলে যাওয়ায় বিপত্তিতে পড়তে হয় নগরবাসীকে। ফুটপাতে হাঁটার জায়গা পান না পথচারীরা। ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায় নগরজুড়ে লেগে থাকে যানজট। আর ফুটপাতের ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ীদের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন নগরীর বিভিন্ন বিপনী বিতানের ব্যবসায়ীরা।

সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে একাধিকবার ফুটপাত দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আদালতও নগরীর ফুটপাত থেকে হকারদের উচ্ছেদের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে ফুটপাত দখলদারকে চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারও করেছে পুলিশ। তবু দখলমুক্ত হচ্ছে না নগরীর ফুটপাত।

এবার নগরীর ফুটপাত দখলমুক্ত করার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে সিলেট চেম্বার অব কমার্স। ফুটপাত দখলমুক্ত ও সড়ক পরিচ্ছন্ন করে নগরীর সড়কগুলোকে ‘মডেল সড়ক’-এ পরিণত করার উদ্যোগ নিয়েছে ব্যবসায়ীদের এ শীর্ষ সংগঠন। এর অংশ হিসেবে প্রথমেই নগরীর জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা পর্যন্ত সড়ককে ‘মডেল সড়ক’ হিসেবে পরিণত করা হবে । সিলেট বিভাগীয় প্রশাসনের উদ্যোগে, সিলেট চেম্বার অব কমার্সের ব্যবস্থাপনায় ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সহযোগীতায় নগরীর প্রধান এই সড়ককে ‘মডেল সড়কে’ উন্নীত কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয় সোমবার।

সিলেট চেম্বার নেতারা জানান, জিন্দাবাজার থেকে চৌহাট্টা সড়ককে পরিচ্ছন্ন ও ফুটপাত হকারমুক্ত করে ওই সড়কে ‘মডেল সড়কে’ পরিণত করা হবে। এই সড়কের পর পর্যায়ক্রমে নগরীর সবগুলো প্রধান সড়ক মডেল সড়কে পরিণত করা হবে বলে জানান চেম্বার নেতারা।

সোমবার দুপুরে এ উপলক্ষ্যে একটি সচেতনতামূলক র‌্যালি নগরী প্রদক্ষিণ করে। নগরীর জিন্দাবার থেকে শুরু হয়ে র‌্যালিটি সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালিতে সিলেটের বিভিন্ন  ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন বিপনী বিতানের ব্যবসায়ীগণ ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। র‌্যালি শেষে শহীদ মিনারের পাদদেশে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ড. নাজমানার খানুম।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদের সভাপতিত্বে ও সহ-সভাপতি এমদাদ হোসেনের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব, সিলেট মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার ফয়সল মাহমুদ, সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী এবং পরিচালক ও আভ্যন্তরীণ বাজার সাব কমিটির আহবায়ক নুরুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার ড. নাজমানার খানুম বলেন, গোটা সিলেটকে একটি পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তোলার লক্ষে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এটি কয়েকটি ধাপে সম্পন্ন হবে। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শুরুতেই জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা সড়ককে পরিচ্ছন্ন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ কার্যক্রমে নগরবাসী ও ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ বলেন, পর্যটন নগরী সিলেটে বেড়াতে প্রচুর পর্যটক আসেন। অথচ নগরীর প্রধানসড়কগুলো অপিরচ্ছন্ন, ঘিঞ্জি ও ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায় তাদের বিপাকে পড়তে হয়। নগরীর বাসিন্দারাও একারণে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এছাড়া ব্যবসায়ীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই নগরীর সড়কগুলো পরিচ্ছন্ন ও ফুটপাত হকারমুক্ত করে মডেল সড়ক হিসেবে পরিণত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিভাগীয় প্রশাসন, পুলিশ, সিটি কর্পোরেশন সকলকে সাথে নিয়ে সমন্বিতভাবে এই কার্যক্রম চালানো হবে। যাতে এতে সুফল পাওয়া যায়।
তিনি সকল ব্যবসায়ীদের প্রতি নিজ নিজ বিপনী বিতান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সম্মুখভাবে পরিচ্ছন্ন রাখা ও ফুটপাত দখলমুক্ত রাখার আহ্বান জানান।

এছাড়া র‌্যালি ও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও উন্নয়ন) আবু সাফায়াত মোঃ সাহেদুল ইসলাম, সিলেট চেম্বারের পরিচালক মোঃ হিজকিল গুলজার, জিয়াউল হক, মোঃ সাহিদুর রহমান, পিন্টু চক্রবর্তী, মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান (ভূট্টো), মুশফিক জায়গীরদার, মুকির হোসেন চৌধুরী, আব্দুর রহমান, চন্দন সাহা, মোঃ আব্দুর রহমান (জামিল), হুমায়ুন আহমেদ, মুজিবুর রহমান মিন্টু, এফবিসিসিআই এর পরিচালক সালাহ উদ্দিন আলী আহমদ প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত