মঙ্গলবার, , ২৩ অক্টোবর ২০১৮ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৩৭

মামার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, অস্বীকার কাউন্সিলরের

সিলেট সিটি করপোরেশনের এক কাউন্সিলরের মামার বিরুদ্ধে নিজের বাসার গৃহকর্মী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। গত শনিবার নগরীর কতোয়ালি থানায় ধর্ষিতা কিশোরীর বোন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলায় নগরীর ১০ নং ওয়ার্ডের কলাপাড়ার ডহর আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সোহেল মিয়াকে আসামী করা হয়েছে। সোহেল সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সালেহ আহমদ চৌধুরীর মামা বলে জানা গেছে।

মামলার এজাহারে নগরীর ঘাসিটুলা এলাকার বাসিন্দা ধর্ষিতার বড় বোন তানজিনা বেগম অভিযোগ করেন, তিন বছর পূর্বে তার গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের তাহিরপুর থেকে ১২ বছর বয়সী ছোট বোনকে সোহেল মিয়ার বাসায় ঘরের কাজে সহযোগিতার জন্য প্রদান করেন। বছর দুয়েক পর তার ছোট বোনকে যৌন হয়রানি করতে থাকেন সোহেল মিয়া। এসব কথা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দিতে থাকেন তিনি।

এজাহারে তানজিনা উল্লেখ করেন, গত ১৪ এপ্রিল রাত ১টার দিকে ছোট বোনের কক্ষে প্রবেশ করে সোহেল মিয়া  একাধিকবার ধর্ষণ করেন। এই ঘটনা পরদিন তানজিনার বাসায় গিয়ে ধর্ষণের কথা জানান ওই কিশোরী। তানজিনা তার স্বামী ও ভাইসহ সোহেল মিয়ার বাসায় গিয়ে এই ঘটনার বিচারপ্রার্থী হলে উল্টো তাকে হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে।

ওই দিনই ধর্ষিতা কিশোরীকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করেরন তানজিনা। এরপর ২৪ এপ্রিল কতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন তিনি।

মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন বলেন, আসামীকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সোহেল মিয়ার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তবে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে সোহেল মিয়ার ভাগ্নে সিটি কাউন্সিলর সালেহ আহমদ বলেন- এই ধর্ষণের মামলা পুরো সাজানো। ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মামলা করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত