আজ রবিবার, , ১৯ আগস্ট ২০১৮ ইং

দিরাই প্রতিনিধি

২২ মে, ২০১৮ ২১:৩১

দিরাইয়ে দুই মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি পরিষদের বিরোধের নিষ্পত্তি

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান স্মৃতি পরিষদ নেতৃবৃন্দের মধ্যকার বিরোধের নিষ্পত্তি হয়েছে। সোমবার (২১ মে) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সমঝোতা সভায় ঐ বিরোধের নিষ্পত্তি হয়।

সভায়, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও দিরাই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহিদুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল, ওসি (তদন্ত) দেলোয়ার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের দিরাই উপজেলা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার আতাউর রহমান, সাবেক কমান্ডার আব্দুল করিম, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার কানাইলাল দাশ, জগদল ইউপি কমান্ডার আব্দুর রব, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল জামুকা অনুমোদিত সংগঠন আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক আল-হেলাল, দিরাই প্রেসক্লাব সভাপতি সামসুল ইসলাম সর্দার খেজুর, কালনী ভিউ অনলাইন নিউজ পোর্টালের সম্পাদক প্রকাশক মুজাহিদুল ইসলাম সর্দার, বার্তা সম্পাদক সৈয়দুর রহমান তালুকদার, কালনী ভিউ এর স্টাফ রিপোর্টার সালমান মিয়া, দিরাই অনলাইন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুবীর দেব শাওন প্রমুখ।

সভায় সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আল-হেলাল এবং জগদল ইউপি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুর রব বলেন, রায়বাঙ্গালী নিবাসী যুক্তরাজ্য প্রবাসী মৃত আব্দুল মান্নান ওরফে আব্দুল মনাফ একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। তাকে মুক্তিযোদ্ধা স্বীকারে বিলেতে ও দেশে এই পরিষদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক ও এলাকার অকাল প্রয়াত সাবেক সাংসদ সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, বর্তমান সংসদ সদস্য ড,জয়া সেন গুপ্তা এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, মেয়র মোশাররফ মিয়া স্ব-শরীরে উপস্থিত ছিলেন।

বিভিন্ন সময় মুক্তিযোদ্ধা তালিকা প্রণীত হওয়ায় দেশে না থাকায় তার নাম তালিকাভুক্ত করা হয়নি। বর্তমানে তার প্রবাসী জ্যেষ্ঠ পুত্র পিতার নাম তালিকাভূক্তির জন্য মন্ত্রী বরাবরে আবেদন করেছেন। তাছাড়া তালিকাবঞ্চিত উপেক্ষিত মুক্তিযোদ্ধারা মহামান্য হাইকোর্টে রিট পিটিশন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ড্রাফটকৃত মামলার প্রক্রিয়াধীন তালিকায়ও ঐ মুক্তিযোদ্ধার নাম আছে।

আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে সাংবাদিক সংশ্লিষ্ট আব্দুল মান্নান স্মৃতি পরিষদের বিরুদ্ধে এবং সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমানের বিপক্ষে যেসব সংবাদ ও ফেসবুক পোষ্ট দেয়া হয়েছে তা বিরোধীয় দুপক্ষ নিজ দায়িত্বে ডিলিট দিবেন। কেউ আর কারো বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক ভাবে কোন মাধ্যমেই বিষোদগার করবেননা।

তালিকাবঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান ওরফে আব্দুল মনাফ সাহেবের তালিকাভূক্তির আবেদনের যাবতীয় কাগজপত্র আমাকে দেবেন। আমরা তার নাম তালিকাভূক্তির জন্য সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠাবো।

সমাপনী বক্তব্যে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শাহিদুল ইসলাম বলেন,একজন মানুষ দুনিয়াতে বেঁচে নেই। তাকে নিয়ে কাদা ছুড়াছুড়ি শোভনীয় নয়। মুক্তিযুদ্ধে সত্যিকার অর্থেই যদি তার অবদান থেকে থাকে তাহলে তাকে উপযুক্ত সম্মান দেয়া উচিত। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে সবার কাছে আশা করবো একে অপরের প্রতি সহনশীল হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে সক্রিয়ভাবে কাজ করবেন।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল বলেন, আমার কাছে দায়েরকৃত অভিযোগটির ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমি ইউএনওকে অনুরোধ করলে তারই একান্ত প্রচেষ্টায় এবং আমাদের সকলের সহযোগিতায় বিষয়টি সম্মানজনক ভাবে নিষ্পত্তি হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত