আজ বুধবার, , ১৮ জুলাই ২০১৮ ইং

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি

১৯ জুন, ২০১৮ ১৮:১১

গোলাপগঞ্জে ‘প্রতিপক্ষের হামলায়’ একজনের মৃত্যু

সিলেটের গোলাপগঞ্জে তুহিন আহমদ (৪৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তবে তুহিনের পরিবারের দাবি, জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (১৮ জুন) দুপুরে বড় বোনের বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউপির রায়গড় গ্রামের মৃত ওয়াহিদ আলীর পুত্র।

নিহত তুহিনের বড় ভাই জিলাল আহমদ জানান, তাদের পরিবারের সাথে একই গ্রামের মৃত ময়না মিয়ার পুত্র জাহেদুর রহমান, খালেদুর রহমানের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন থেকে জমি সংক্রান্ত মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল। নিহত তুহিন ও তাঁর ভাইয়েরা প্রতিপক্ষ জাহেদুর রহমান, খালেদুর রহমানদের ফৌজধারী দায়ের করা মামলায় ওয়ারেন্টকৃত আসামি হিসাবে পলাতক ছিলেন। কয়েকদিন আগে বিরোধীপক্ষ বিভিন্নভাবে প্রাণনাশের হুমকি দিলে তুহিনের পরিবারের পক্ষ থেকে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছেন বলেও জানান তিনি।

পরিবার সূত্রে আরো জানা যায়, শুক্রবার (১৫ জুন) রাত ৮টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যাওয়ার পথে ঢাকাদক্ষিণ-সুনামপুর সড়কের রায়গড় কালাই মিয়ার ডাউন নামক স্থানে পূর্বপরিকল্পিতভাবে প্রতিপক্ষের কয়েকজন লোক দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে তুহিনের উপর হামলায় চালায়। এতে তুহিন মারাত্মকভাবে আহত হলে পুলিশের ভয়ে তুহিন তাঁর বড় বোনের বাড়িতে গোপনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সোমবার দুপুরে তুহিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

এদিকে তুহিনের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়ে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এ ঘটনার খবর পেয়ে তুহিনের বোনের বাড়ি লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের নিজ ঢাকাদক্ষিণস্থ গ্রামে পরিদর্শন করেন গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম ফজলুল হক শিবলী।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা মৃদুল কুমার ভৌমিক জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত এ বিষয়ে কিছু বলা যাচ্ছে না।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত