বুধবার, , ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

বানিয়াচং প্রতিনিধি

০৮ আগস্ট, ২০১৮ ১৭:২১

পুলিশ সুপার কারো কথা মতো কাজ করে না: বিধান ত্রিপুরা

হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা পিপিএম-বার বলেছেন, সত্য ও ন্যায়ের পথে থেকে কাজ করলে পৃথিবীর কোন অপশক্তি কাজ করতে পারবে না। সমাজে দাঙ্গা দমনে যথেষ্ট কাজ করে যাচ্ছি। জানমালের নিরাপত্তা দেয়াই পুলিশের কাজ। পুলিশ সুপার কারো কথা মতো কাজ করে না। আমি জনগণের এসপি হতে চাই। দেশে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে যে একশনে গিয়েছে পুলিশ তা বিশ্বে বিরল। এই পুলিশ অনেক গর্বের।


বুধবার (৮ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় আলী কলেজ অডিটোরিয়ামে বানিয়াচং কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির আয়োজনে মাদক, দাঙ্গা, জঙ্গি, সন্ত্রাস, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিংসহ বানিয়াচংয়ের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নয়নে আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসপি বিধান ত্রিপুরা পিপিএম-বার আরও বলেন,আমি দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে জেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায় দাঙ্গা, জঙ্গিবাদ দমনে জিরো টলারেন্স দেখিয়েছি। সমাজে গোষ্ঠীগত দাঙ্গাটাই বেশি। মাদক বিক্রেতার যে দলেরই হোক কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। কারো রাজনৈতিক পরিচয় ও বিবেচ্য বিষয় নয়। দাঙ্গা ও জঙ্গি দমনে পুলিশের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি তথা সমাজের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দদের পাশে থাকার অনুরোধ করেন তিনি।

এসপি বলেন, মাদক একটি পরিবার তথা সমাজকে নষ্ট করে দিচ্ছে। মাদক নির্মূল করা এসপির মূল কাজ না, সেটা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের। নতুন প্রজন্মকে পুরোপুরি নষ্ট করে দিচ্ছে এই মাদক। বাংলাদেশের পরিবর্তন অবশ্যই একদিন হবে। সবাই মিলে কাজ করলে সুন্দর একটি দেশ গড়া সম্ভব।

বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে ও কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির সেক্রেটারি শিক্ষক বিপুল ভুষন রায়ের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বানিয়াচং কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন মাস্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন খান, জনাব আলী ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ শামসুজ্জামান খান, সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আতাউর রহমান, চেয়ারম্যান শেখ সামছুল হক, আহাদ মিয়া, ওয়ারিশ উদ্দিন খান, এরশাদ আলী, প্রেসক্লাব সেক্রেটারি তোফায়েল রেজা সোহেল, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সেক্রেটারি কাজল চ্যটার্জি প্রমুখ।

মতবিনিয়ম সভায় সাংবাদিক, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, মসজিদের ইমাম, এলাকার সর্দারসহ রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত