শুক্রবার, , ১৬ নভেম্বর ২০১৮ ইং

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি

০৭ নভেম্বর, ২০১৮ ২০:২০

তৃণমূল বিচ্ছিন্ন শিক্ষামন্ত্রী দু'একজন খলিফা নিয়ে আছেন

গোলাপগঞ্জে আ’লীগের কর্মী সভায় শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি নেতাকর্মীদের ক্ষোভ

সিলেটের গোলাপগঞ্জে আওয়ামী লীগের কর্মী সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপির প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দলের তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

বুধবার দুপুরে সদর ইউনিয়নের একটি কমিউনিটি সেন্টারে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আয়োজিত কর্মী সভায় বক্তারা বলেছেন, আমাদের শিক্ষামন্ত্রী তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। তিনি দু চারজন খলিফা নিয়ে আছেন। রাজনৈতিক এবং সরকারি কোনো কর্মকান্ডে তিনি আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের সম্পৃক্ত করেন না। বিগত ৯ বছরে উপজেলায় কি উন্নয়ন হয়েছে নেতাকর্মীদের জানা নেই। আসন্ন নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কি বলে ভোট চাইবো তাও আমাদের বোধগম্য নয়। শিক্ষামন্ত্রীর কয়েকজন বিশেষ প্রতিনিধিরর কারণে আজ গোটা উপজেলা আওয়ামীলীগ বিভক্ত।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নির্বাচন আসলে আমাদের খুঁজে বের করা হয়। আর নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর স্থানীয় নেতাকর্মীদের ঘাম জড়ানো কাজের কথা ভুলে যান তারা। বিভিন্ন সভায় শিক্ষামন্ত্রী অংশগ্রহণ করলেও আমাদের এসব অনুষ্ঠানে কোন আমন্ত্রণ করা হয় না। বক্তারা বিগত আসন্ন সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনে নেতৃমূলের মনোনীত প্রার্থীকে নৌকার মাঝি করার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহবান জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমানের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার বদরুল ইসলাম সোয়েব, জেলা পরিষদ সদস্য সায়্যিদ আহমদ সুহেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শরফ উদ্দিন, ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল লেইছ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী রিংকু, আওয়ামী নেতা জগলুল আহমদ চৌধুরী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রুহিন আহমদ খান, লক্ষ্মীপাশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম চৌধুরী মছলু, লক্ষীপাশা ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুর রহিম নান্টু, ভাদেশ্বর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রব, শরীফগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান,ফুলবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মখলিছুর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল হানিফ খান, বাদেপাশা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী আব্দুল কাদির, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল কবির এনাম, আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মঈন উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক বদরুল হক, বাদেপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা মস্তাক আহমদ, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদ উদ্দিন ইরান, বুধবারীবাজার ইউনিয়ন আওয়ালীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহিদ, সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুস সামাদ জিলু, বাদেপাশা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আলিম উদ্দিন, আমুড়া ইউনিয়িন আ.লীগের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর মজিদ চৌধুরী, আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক আবু সুফিয়ান আজম, উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক রুহেল আহমদ, সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ওহীদুর রহমান ছানা, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম জেড আলম, পৌর ছাত্রলীগ নেতা মাজেদ শরীফ চৌধুরী, নাদিম মাহমুদ শিপলু, পৌর আওয়ামী সহ দপ্তর সম্পাদক মিনহাজ উদ্দিন, আওয়ামীলীগ নেতা রুমেল সিরাজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেদওয়ান আহমদ প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী বলেন, আজকের কর্মী সভায় নেতৃমূল নেতাকর্মীদের বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ পেয়েছে। আগামী সংসদ নির্বাচনে যেই নৌকার প্রার্থী হয়ে আসবেন, তিনি উপজেলার নেতৃমূল নেতাকর্মীদের সাথে বসতে হবে।

এছাড়াও ইকবাল আহমদ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকেই নৌকার মাঝি করে পাঠাবেন ক্ষোভ নিয়ে ঘরে না বসে তার পক্ষে কাজ করার আহবান জানান।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত