শনিবার, , ২০ এপ্রিল ২০১৯ ইং

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি

১৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২০:১১

কমলগঞ্জে চিকিৎসা করাতে না পেরে যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ রেলস্টেশনের সংলগ্ন কুমড়াকাপন এলাকায় আত্মহত্যা করবেন বলে সিলেট-আখাউড়া রেল লাইনে ইমন আহমেদ (২২) নামে এক যুবক শুয়ে আছেন। সবাই বলছেন রেল লাইন থেকে উঠে আসার জন্য কিন্তু তিনি উঠছেন না। কারণ তার ভাষ্যমতে মৃত্যুর চেয়েও বেশি যন্ত্রনা ভোগ করছেন তিনি।

ইমন ১টি গাড়ীর হেলপার ছিলেন। কিছুদিন আগে হাইওয়ে সড়ক দূর্ঘটনায় তার দুই হাতের বেশ কয়েকটি স্থানে ভেঙ্গে যায়। দুই হাত প্লাস্টারিং করলেও আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে সুচিকিৎসা করাতে পারছিল না ইমন। দিন দিন তার হাতের যন্ত্রণা বেড়ে যাচ্ছিল। এই যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরেই আত্মহত্যার এমন সিদ্ধান্ত নেন ইমন।

তাই রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিলেট-আখাউড়া রেল লাইনে শুয়ে পড়েন ইমন। তখন ঢাকা থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর পারাবত ট্রেন এই জায়গাটি অতিক্রম করার কথা। স্থানীয় লোকজন ট্রেন লাইন থেকে সরে যাওয়ার কথা বললেও কারো কথা শুনছিলনা ছেলেটি। তখন কমলগঞ্জ থানা পুলিশ রেললাইন থেকে উদ্ধার করে ইমনকে। উদ্ধারের পর পুলিশের কাছে এই কথা জানায় ইমন।

পুলিশ জানায়, এক যুবক আত্মহত্যা করার জন্য রেল লাইনে শুয়ে আছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে কমলগঞ্জ থানার এসআই সুরুজ আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দলসহ স্থানীয়রা বাবুল মিয়ার ছেলে ইমন আহমেদ (২২) কে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। থানায় গিয়ে আত্মহত্যার কারণ খুলে বলে ইমন।দুপুর ১ টায় ইমনকে কে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা ছেলেটিকে উদ্ধার করেছি। এটা একটা মানবিক বিষয়। একজন মানুষ কতটুকু শারীরিক কষ্টে থাকলে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। তার বক্তব্য শুনলে আর তার অবস্থা দেখলে যে কারো চোখে পানি আসবে। সমাজের বিত্তবানদের উচিত তাকে সাহায্য করা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত