মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯ ইং

ছাতক প্রতিনিধি

১১ মে, ২০১৯ ২২:২৫

ছাতকে নৌপথে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ২

ছাতকের নৌপথে চাঁদাবাজির অভিযোগে হলুদ কার্ডধারী দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (১১ মে) সুরমা নদী দিয়ে চলাচলকারী নৌ-যান থেকে চাঁদা আদায়কালে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের গনেশপুর গ্রামের মৃত চান মিয়ার পুত্র মানিক মিয়া (৩৫) ও একই গ্রামের আফতাব উদ্দিনের পুত্র মোজাহিদ আলী (২৪)।

ছাতক নৌপথে বিভিন্ন সংস্থা ও সংগঠনের নামে দীর্ঘদিন ধরে নৌযান থেকে অতিরিক্ত হারে চাঁদা আদায় করে যাচ্ছে একটি মহল। ছাতকের নদীপথে পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদ, নৌ পুলিশ ফাঁড়ি, বিআইডব্লিউটিসি, লাল, হলুদ ও নীল কার্ডধারীসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন টোল আদায় করছে।

এসব সংগঠনের নামে বৈধ এবং অবৈধভাবে চাঁদা আদায় করা হচ্ছে নৌযান থেকে। অতিরিক্ত হারে চাঁদা না দিলে নৌযান শ্রমিক ও মালিকদের নির্যাতন করারও অভিযোগ রয়েছে। গত সোমবার দুপুরে সর্বস্তরের ব্যবসায়ীদের পক্ষে এফবিসিসিআইর জেনারেল বডির মেম্বার, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ও ছাতক লাইমষ্টোন ইম্পোর্টার্স এন্ড সাপ্লায়ার্স গ্রুপে প্রেসিডেন্ট আহমদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সহ সভাপতি হাজী সালেহ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামছু মিয়া, ছাতক শাহপরান ইঞ্জিন নৌকা মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি ছালেক মিয়া ও ছাতক একতা বালু উত্তোলন ও সরবরাহকারী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি আব্দুস ছাত্তার স্বাক্ষরিত এ অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবেদা আফসারীর কাছে দেন।

আবেদনের কপি নৌ মন্ত্রণালয়সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবেদা আফসারীর কার্যালয়ে এ ব্যাপারে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় তিনি অবৈধভাবে চাঁদা আদায়কারীদের গ্রেপ্তারের জন্য ছাতক থানার ওসিকে অনুরোধ করেন। চাঁদা আদায়কারী সকল সংগঠন ও ব্যবসায়ীদের নিয়ে এ ব্যাপারে আগামী মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে আরেকটি বৈঠক ডাকা হয়েছে।

ঐ বৈঠকে সুরমা, চেলা ও পিয়াইন নদী থেকে বৈধভাবে চাঁদা আদায়ের বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে। ছাতক নৌপথে প্রতি নৌকা, কার্গো-বার্জ, বাল্কহেড নৌকা থেকে অতিরিক্ত ৩-৪ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করা হয়। এতে এ নৌপথ দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্যে ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে।

এ ব্যাপারে ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা কামাল আটকের কথা স্বীকার করে জানান, নৌ-পথে চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত