বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ ইং

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

২৫ মে, ২০১৯ ০১:০২

হবিগঞ্জে পৃথক বজ্রপাতে ৩ জনের প্রাণহানি

হবিগঞ্জে বজ্রপাতের পৃথক ঘটনায় তিনজন মারা গেছেন। শুক্রবার সকাল ও দুপুরে জেলার মাধবপুর, নবীগঞ্জ ও চুনারুঘাটে এ ঘটনা ঘটে।

মাধবপুর উপজেলার বুল্লা গ্রামে শুক্রবার সকালে বজ্রপাতে ফয়সল মিয়া(৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত ও দু’জন আহত হয়েছেন।

নিহত ফয়সল উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের বুল্লা গ্রামের জিতু মিয়ার ছেলে। বজ্রপাতের সময় তারা হাওর থেকে ধান নিয়ে আসছিলেন।

বুল্লা ইউপি চেয়ারম্যান সামসুল ইসলাম মামুন জানান, শুক্রবার সকালে ফয়সল ও তার সঙ্গী ধান কাটার শ্রমিকরা মাঠ থেকে ধান কেটে বাড়ি নিয়ে আসার সময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই ফয়সল মারা যায়। এঘটনায় গুরুতর আহত সামসু মিয়া(৩৪) ও খোকন মিয়া(৩৫)কে উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি)চন্দন কুমার চক্রবর্তী, বজ্রপাতে একজন মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে নবীগঞ্জে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে সিজিল মিয়া (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার (২৪ মে) দুপুরে উপজেলার গুজাখাইড় গ্রামের হাওরে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত সিজিল মিয়া ওই গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন জানান, সিজিল মিয়া সকালে গ্রামের পাশ্ববর্তী হাওরে মাছ ধরতে যান। দুপুরে বজ্রসহ বৃষ্টি শুরু হলে সিজিল মিয়া বজ্রাঘাত হন। এসময় ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এছাড়া চুনারুঘাটে ধান রোপন করতে গিয়ে বজ্রপাতে সীমা উঁরাওর (২২) নামে এক নারী চা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৪ মে) দুপুরে উপজেলার ঘনশ্যামপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত সীমা উঁরাওরা উপজেলার আমু চা বাগানের (পুলপার) প্রদীপ উঁরাওর কন্যা।

চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজমিরুজ্জামান জানান, সকালে সীমা উঁরাওরা গ্রামের পাশ্ববর্তী মাঠে ধান রোপন করতে গিয়েছিলেন। দুপুরে ঝড় বৃষ্টি শুরু হলে তিনি মাঠ থেকে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথিমধ্যে তার উপর বজ্রপাত ঘটলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত