বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ ইং

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

০৪ জুন, ২০১৯ ০২:০৬

সামান্য বৃষ্টিতেই হবিগঞ্জ শহরে জলাবদ্ধতা, দুর্ভোগ

জলাবদ্ধতা যেন হবিগঞ্জ শহরের জন্য অভিশাপ হয়ে গেছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই শহরের বিভিন্ন অলিগলিতে হাঁটু পানি জমে যায়। আর এতে করে দুর্ভোগে পড়েন শহরে বসবাসরত হাজার হাজার জনসাধারণ। জলাবদ্ধতা নিরসনে বার বার পৌর কর্তৃপক্ষ ও হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানালেও এমনকি মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হলেও কোন পদক্ষেপই নিচ্ছেন না তারা।

জানা যায়, সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হবিগঞ্জ শহরের উপর দিয়ে বয়ে যায় বৃষ্টিপাত। আর এতে করেই পানি উন্নয়ন বোর্ড সড়ক, শায়েস্তানগর হকার্স মার্কেট, শায়েস্তাগঞ্জ আবাসিক এলাকা, শ্যামলী এলাকা, গরুর বাজার, অনন্তপুর, ঘাটিয়া এলাকাসহ শহরজুড়ে বিভিন্ন পয়েন্টে পানি জমে যায়। এতে দুর্ভোগে পড়েন শহরবাসী।

অনেকের বাসার ভেতরে পানি প্রবেশ করে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে মূল্যবান আসবাবপত্র। এর জন্য পুরাতন খোয়াই নদীসহ বিভিন্ন ডোবা এবং নালা দখল ও অপরিকল্পিত আবাসনকে দায়ী করছেন সচেতন মহল।

ঈদ মার্কেট করতে আসা হেপী আক্তার নাজমা নামে এক কলেজ ছাত্রী জানান, হবিগঞ্জ শহরের জলাবদ্ধতা নিত্যদিনের সঙ্গী। মার্কেটে যাওয়ার সময় সড়কে পানি জমে থাকার কারণে আসা যাওয়া বিলম্ব হচ্ছে। অনেকে আবার পানি পেরিয়ে অধিকাংশ মার্কেটে যেতে চায় না। যারা মার্কেট করছেন তারা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা)-এর হবিগঞ্জ জেলা সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল জানান, পুরাতন খোয়াই নদী দখল এবং অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণেই হবিগঞ্জে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। নাগরিক সমাজ নিয়মিত আন্দোলন এবং প্রশাসনের লোকদের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না কেউই।

হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তৌহিদুল ইসলাম জানান, পৌর এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে আমারা একটি মাস্টার প্লেন গ্রহণ করতে যাচ্ছি। আশা করি দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হবে।

হবিগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র দিলীপ দাস জানান, হবিগঞ্জ পৌর এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসন করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। পরিকল্পিত ভাবে ড্রেনেজ ব্যবস্থা করে এ সমস্যার সমাধান করা হবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত