বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ ইং

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

০১ জুলাই, ২০১৯ ১৮:৪১

হবিগঞ্জে পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবস্থান কর্মসূচী

রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদানসহ পেনশন প্রথা চালুর দাবি ও জনপ্রতিনিধিদের সম্মানীভাতা প্রদানের দাবিতে হবিগঞ্জ পৌরসভায় অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশন। এ কর্মসূচী চলাকালীন হবিগঞ্জ পৌরসভায় কর্মবিরতিও পালন করে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

সোমবার (১ জুলাই) কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত হবিগঞ্জ পৌরসভাসহ সারাদেশের পৌরসভায় এ কর্মসূচী পালিত হয়।

পৌরকর্মকর্তা-কর্মচারীদের এ দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন হবিগঞ্জ পৌরপরিষদের সদস্যবৃন্দ।

বাংলাদেশ সার্ভিস এসোসিয়েশন হবিগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মো. ফয়েজ আহমেদ বলেন, পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ সকল নাগরিকের জন্ম হতে মৃত্যু পর্যন্ত নাগরিক সেবা দেয়ার কাজে নিয়োজিত থাকেন। কিন্তু বাংলাদেশের ৩২৮ টি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা সরকারী কোষাগার থেকে না হওয়ার কারণে তাদেরকে মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে। চাকুরী শেষে তাদের পেনশন না থাকার কারণে তাদেরকে পরিবার পরিজন নিয়ে অসহায় দিনানিপাত করতে হয়। তাই সারাদেশের পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আমারা রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে শতভাগ বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবি আদায়ের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে আজ ঐক্যবদ্ধ। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঘরে ফিরে যাবে না।

তিনি আগামী ১৪ জুলাইয়ে ঢাকায় আয়োজিত মহাসমাবেশ সফল করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

হবিগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র দীলিপ দাস পৌরকর্মকর্তা-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে এ আন্দোলনের সফলতা কামনা করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌরকাউন্সিলর মো. জাহির উদ্দিন, মোহাম্মদ জুনায়েদ মিয়া, গৌতম কুমার রায়, শেখ নূর হোসেন, মো. আলমগীর, শেখ মো. উম্মেদ আলী শামীম, খালেদা জুয়েল ও অর্পনা পাল, বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশন হবিগঞ্জ পৌরসভা শাখার সভাপতি মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস ও সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান দুলনসহ হবিগঞ্জ পৌরসভার সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

বাংলাদেশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি মো. আব্দুল আলীম মোল্লা স্বাক্ষরিত এক পত্রে দাবী আদায়ের স্বপক্ষে ৩ দিনের কর্মসূচীর কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে ১ জুলাই সকাল ৯ টা হতে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচী আজ পালন করা হয়েছে। ২ জুলাই মঙ্গলবার জেলা প্রেসক্লাবের সামনে সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত অবস্থান করে এক দফা দাবি আদায়ের পক্ষে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন। ওই দিন সকাল ৬ টা হতে পরদিন সকাল ৬ টা পর্যন্ত সড়ক বাতি ও কঞ্জারভেন্সী সেবাসহ অন্যান্য সকল দাপ্তরিক সেবা বন্ধ রাখা। ১৪ জুলাই ঢাকা প্রেসক্লাবের সামনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দেশের সকল পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মহাসমাবেশসহ অবস্থান কর্মসূচী পালন করবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত