মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ ইং

বানিয়াচং প্রতিনিধি

০৪ জুলাই, ২০১৯ ২১:০৯

বানিয়াচংয়ে দুটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের বেহাল দশা

বানিয়াচং উপজেলা সদরের ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়নের অন্তর্গত গ্যানিংগঞ্জ বাজার থেকে বড়বাজার যাওয়ার সাগরদীঘি পূর্বপাড়ের মধ্যকার আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছাকাছি একটি জায়গা ভেঙে পড়েছে সড়কের একাংশ। ইতোমধ্যে এই জায়গাটিতে বড় ধরণের গর্ত হয়ে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকি নিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে শত শত মানুষ ও যানবাহন চলাচল করছে। রাস্তায় চলতে গিয়ে হরহামেশা দুর্ঘটনার শিকারও হতে হচ্ছে স্থানীয়দের। বিশেষ করে সন্ধ্যার পরই বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।  

অন্যদিকে একই বাজার হতে বড়বাজার যাওয়ার সড়কে স্থানীয় এল আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের উত্তর কোণে একটি মিনি কালভার্ট ভেঙে যান চলাচলে প্রায় অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন যাবত এই অবস্থা থাকার পরও সেটি মেরামত করতে আদৌ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সড়কের এই কালভার্টটি মেরামত করা না হলে যে কোনো সময় এটি ভেঙে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।


এই সড়ক দুটি দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য বাস, জিপ, ট্রাক, মাইক্রো, ইজিবাইক ও টমটমসহ বিভিন্ন যানবাহনে শত শত মানুষ চলাচল করছেন। স্কুল, কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ ব্যবসায়ীদের জন্য সড়ক দুটি গুরুত্বপূর্ণ। তাই দ্রুত এই দুটি সড়ক মেরামতের জন্য জনপ্রতিনিধি ও সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

বানিয়াচং এল আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের নিকটবর্তী ভেঙ্গে যাওয়া কালভার্ট সম্পর্কে ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম  ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেখাছ মিয়া বলেন, কিছুদিন আগে এখানে আমার পরিষদ থেকে ১০ হাজার মাটি ফেলার জন্য বরাদ্দ দিয়েছি। এখন আবার ওই কালভার্টটি ভেঙে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী আশ্বাস দিয়েছেন ওখানে নতুন করে একটি কালভার্ট নির্মাণের।

অন্যদিকে ৩নং দক্ষিণ-পূর্ব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাওলানা হাবীবুর রহমান সাগরদিঘীর পূর্বপাড়ের আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয়ের নিকটবর্তী ভাঙা সড়কটি মেরামতের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীর সাথে কথা বলেছেন বলে জানান।

এই বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী আল-নূর তারেক বলেন, কিছুদিনের মধ্যেই এই রাস্তাসহ যতগুলো ভাঙা রাস্তা আছে সবগুলো রাস্তা মেরামত করা হবে।


আপনার মন্তব্য

আলোচিত