সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯ ইং

জাহিদ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ

১০ আগস্ট, ২০১৯ ২২:২৭

গোলাপগঞ্জে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট

ঈদ-উল আযহার আর মাত্রা দুই দিন বাকি। তারপরও অনেকেই এখনও কিনতে পারেননি কোরবানির পশু। তাই শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার কোরবানির পশুর হাটগুলো। উপজেলায় এক সপ্তাহ আগে থেকে কোরবানির গরু বেচাকেনা শুরু হয়েছে। তবে শুরুতে দাম বেশি থাকায় শেষ সময়ে জমে উঠেছে হাটগুলো।

বিক্রেতারা বলছেন, আগের কয়েক দিন বেচাকেনা তেমন না হলেও শনিবার দুপুরের পর থেকে ক্রেতা বেড়েছে, সেই সঙ্গে বেড়েছে বিক্রি।

অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, দাম গতবারের চেয়ে বেশি চাইছেন বিক্রেতারা। হাটে দেশীয় প্রচুর গরু উঠলেও শেষ সময়ে এসে বেশি দামেই কিনতে হচ্ছে তাদের। এবার কোরবানির বাজারে ভারতীয় গরু কম আসায় হাসি ফুটেছে দেশি খামারিদের মুখে।

জানা যায়, উপজেলার এমসি কলেজ মাঠ, ঢাকাদক্ষিণ মাদরাসা মাঠ, পুরকায়স্থ বাজার, মীরগঞ্জ এম আই দাখিল মাদ্রাসা মাঠ, বাঘা বটরতল বাজার, পরগণা বাজারসহ বেশ কয়েকটি পশুর হাটে শেষ সময়ে জমে উঠেছে কেনাবেছা।

শনিবার দুপুরে উপজেলার সরকারী এমসি একাডেমী মাঠে গোলাপগঞ্জের অস্থায়ী পশুর হাটে গিয়ে বেশ ভিড় দেখা যায়। পছন্দের গরুটি কিনতে ক্রেতারা দরদাম করছেন। সব কিছু মিলে গেলে টাকা দিয়ে গরুর দড়ি হাতে নিয়ে বাড়ির পথ ধরছেন।

গরু বিক্রি করতে আসা জব্বার মিয়া জানান, তিনি ঘরের একটি ষাঁড় গরু বিক্রি করতে এসেছেন। গরুর দাম ৯০হাজার টাকা চাচ্ছেন। দাম মনের মত পেলে তিনি এই ষাঁড়টি বিক্রি করে দিবেন। এবার বিদেশী গরু হাটে কম তাই দেশী গরুর দাম বেশি বলেও জানান তিনি।

মিছবাহ উদ্দিন নামের আরেক গরু ব্যাপারী জানান, হাটে ভারতীয় গরু নেই তাই কিছু স্বস্তিতে আছি। তবে দেশীয় গরুর দাম বেশি হওয়ায় গরু বিক্রি কম হচ্ছে।

রুমন আহমদ নামের এক ক্রেতা জানান, কোরবানির গরু কিনতে এসেছি। হাটে দেশীয় গরু অনেক হলেও দাম অনেক চওড়া।

ঘোষগাঁও ফাহিম আহমদ নামের এক ক্রেতা জানান, গরুর দাম বেশি হওয়ায় একটি মাঝারি গরু ৪০হাজার টাকায় কিনেছি।

অন্যদিকে কোরবানির পশুর দাম বৃদ্ধিতে পৌর এলাকার মখদ্দছ আলী (৪৫) জানান, আমার পক্ষে এবার কোরবানি দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ হিসেবে গরুর দাম খুব চওড়া বলে জানান।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, কোরবানীর পশুর হাটে বাড়তি নিরাপত্তা বজায় করা হয়েছে। সবাই যাতে নিরাপদে কোরবানীর পশু ক্রয় বিক্রয় করতে পারে সে জন্য প্রতিটি হাটে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত