বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

রিপন দে

১১ আগস্ট, ২০১৯ ১৫:৩৬

টাঙ্গুয়ার হাওরে নৌকা ভাড়া নির্ধারণ করে দিলেন ইউএনও

নির্ধারণ করা হয়েছে সুনামগঞ্জের সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র টাঙ্গুয়ার হাওরের নৌকা ভাড়া। বহুদিন ধরেই এখানে নৌকার সিন্ডিকেটের কারণে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় পর্যটকদের। একটি নৌকায় তেল শ্রমিকসহ সর্বোচ্চ খরচ দুই রাত একদিন ৪ থেকে ৫ হাজার স্থলে নৌকার ভাড়া ২০-২২ হাজার টাকা পর্যন্ত নেওয়া হতো বলে অভিযোগ ছিল।

এই সব অভিযোগ আসার পরে বারবার চেষ্টা করে অবশেষে নৌকার ভাড়ার এই সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দিলেন তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ ইমতিয়াজ।

ভাড়ার তালিকা থেকে জানা যায়, নৌকার ধরণভেদে সর্বোচ্চ ২০ জন যাত্রী ৮ থেকে ১২ ঘণ্টার জন্য ৩ হাজার টাকা, ২ দিন ও ১ রাতের জন্য ৬ হাজার টাকা, ৩ দিন ২ রাতের জন্য ৭ হাজার টাকা। সর্বোচ্চ ৩০ জন যাত্রীর জন্য নৌকা ৮ থেকে ১২ ঘণ্টার জন্য ৪ হাজার ৫০০ টাকা, ২ দিন ১ রাতের জন্য ৯ হাজার টাকা, ৩ দিন ২ রাতের জন্য ১০ হাজার টাকা।

তাছাড়া সর্বোচ্চ ৪০ জন যাত্রীর ধারণক্ষমতা সম্পন্ন বড় নৌকায় ৮ থেকে ১২ ঘণ্টা ৬ হাজার টাকা, ২ দিন ১ রাতের জন্য ১২ হাজার টাকা ও ৩ দিন ২ রাতের জন্য ভাড়া ১৩ হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে প্রশাসন।

ভাড়া বেঁধে দেওয়ার পাশাপাশি প্রত্যেক নৌকায় লাইফ জ্যাকেট ফ্রি দেয়ার জন্য সকল নৌকার মালিকদের নির্দেশনা দিয়েছে প্রশাসন।

আগামী ১-২ দিনের মধ্যে সব জায়গায় ভাড়ার তালিকা দৃশ্যমান হবে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ ইমতিয়াজ বলেন, বেশ কিছুদিন যাবত আমি নৌকার মালিকদের সঙ্গে কথা বলি। তাদের সুবিধা ও পর্যটকদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে একটি ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এমন সুন্দর একটা পর্যটন স্পটে সব কিছু করতে হবে নিয়ম মেনে। পর্যটক যেন হয়রানির স্বীকার না হন সেটা হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ। যে যার মতো ভাড়া আদায় করবে সেটা হতে পারে না। আমরা একটি নৌকার খরচ, তার ধারণ ক্ষমতা এবং পর্যটক উভয়ের কথা ভেবেই একটি যৌক্তিক ভাড়া দাড় করিয়েছি। আগে কোনো চার্ট না থাকায় এটাকে অনেকে মাছ বাজার বানিয়ে ফেলেছিল।

তিনি আরও বলেন, ‘যদি নৌকাগুলো নির্ধারণ করে দেওয়া ভাড়া না মানে তাহলে উপজেলা প্রশাসনকে পর্যটকরা জানাতে পারবেন। যদি অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে সাথে সাথে অভিযুক্তদের জরিমানা করা হবে।’

এদিকে নতুন নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে অনেকে এই ভাড়াকে সাধুবাদ জানান।

এদিকে এখনো নৌকার সিন্ডিকেট বিভিন্নভাবে আগের ভাড়া বাতিল না করা এবং নির্দিষ্ট চার্টের ভাড়া না টানানোর জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে।

এ নিয়ে প্রশ্ন করলে তাহিরপুরের ইউএনও বলেন, ভাড়ার যে চার্ট হয়েছে তার থেকে আগামীতে কমবে, বাড়বে না আর।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত