সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ইং

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:৩৯

ডলুরা বর্ডারহাট: ব্যবসা বেড়েছে, বেড়েছে সঙ্কটও

সুনামগঞ্জ সীমান্তের ডলুরা বর্ডার হাটে ক্রেতার সমাগম দিনদিন বাড়ছে। বাড়ছে বিক্রিও। তবে বিশুদ্ধ পানি ও স্যানিটেশর সমস্যায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এই বর্ডার হাটের ক্রেতা-বিক্রেতাদের।
 
মঙ্গলবার দুপুরে ভারতীয় হাই কমিশনের সহকারী হাই কমিশনার এল কৃষ্ণমূর্তিসহ বর্ডার হাট পরিচালনা কমিটির বাংলাদেশ ও ভারতের পক্ষের দায়িত্বশীলদের কাছে এসব সমস্যার কথা তুলে ধরেন দুই দেশের ব্যবসায়ীরা।

সুনামগঞ্জ সীমান্তেরর ডলুরা এলাকায় ২০১২ সালের ২৪ এপ্রিল গড়ে ওঠা দেশের ২য় ডলুরা- বালাট বর্ডার হাটে এখন জমজমাট কেনাকাটা। প্রতি মঙ্গলবার গড়ে দুই দেশের ১০ লাখ টাকার পন্য কেনাবেছা হয় বলে জানিয়েছেন দোকানীরা।

ভারতের বালাটের সুপারী ব্যবসায়ী আয়শা লংকর জানালেন, বর্ডার অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশ, বিজিবি-বিএসএফ’র লোকজনও সহযোগিতার মনোভাব নিয়েই কাজ করেন। তবে মাঝে-মধ্যে আগে নোটিশ না দিয়েই হাট বন্ধ রাখা হয়, তাতে তারা বেকায়দায় পড়েন। গত ১০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার তারা পণ্য নিয়ে অনেক দূর থেকে হাটে এসেছেন, এসে জানলেন আজ হাট বসবে না। তাতে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেন। এভাবে হাট বন্ধ রাখলে আগের হাটের দিন জানিয়ে দিলে সুবিধা হয়।

তিনি জানালেন, এই হাটে স্যানিটেশনের সমস্যা বেড়েছে। শুরু’র দিকে যে লেট্রিনগুলো ছিল, এগুলো ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এছাড়া হাটের দিন হাজারো মানুষ এখানে আসে কিন্তু বিশুদ্ধ পানি’র ব্যবস্থা নেই। ভারতের বালাটের ব্যবসায়ী রাম দেবও একই মন্তব্য করলেন।

স্থানীয় জাহাঙ্গীর নগর ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মোকছুদ আলী জানালেন, দুই দিকের অর্থাৎ বাংলাদেশ এবং ভারত দুই অংশের স্থানীয় মানুষের কাছেই ডলুরা বর্ডার হাট গ্রহণযোগ্য হয়ে ওঠেছে। হাট পরিচালনা কমিটি দুই দিক থেকেই আরো বেশি ক্রেতাকে হাটে প্রবেশের সুযোগ  দিলে বিক্রি বাড়বে, আরও জমজমাট হবে হাট।

বর্ডার হাট পরিচালনা কমিটির কর্মকর্তা সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোখলেছুর রহমান জানালেন, ১০ সেপ্টেম্বর আশুরা থাকায় বর্ডার হাট বন্ধ ছিল। ২-৩ দিন আগেই বিএসএফ সদস্যদের জানানো হয়েছিল। ভবিষ্যতে এই বিষয়ে আরও সতর্কতা অবলম্বন করা হবে আগে থেকে যাতে ব্যবসায়ীরা জানতে পারেন, এই বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে। বর্ডার হাট পরিচালনা কমিটি বসে হাটে স্যানিটেশন এবং বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাকরণ সহ যা যা প্রয়োজন সবই করা হবে।

মঙ্গলবার ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার বর্ডার হাট পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোখলেছুর রহমান, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসমিন নাহার রুমা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদীন, সদর থানার ওসি মোহাম্মদ শহিদুর রহমান, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি পঙ্কজ কান্তি দে প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত