বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ইং

বড়লেখা প্রতিনিধি

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:২৫

বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ দিয়ে প্রধান শিক্ষকের অটোরিকশা চার্জ

ভ্রাম্যমাণ আদালতে চালকের জরিমানা, প্রধান শিক্ষককে শোকজ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে অটোরিকশার ব্যাটারি চার্জ দেওয়ার অপরাধে এক চালকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার গজভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

অবৈধভাবে বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ দিয়ে চার্জ দেওয়া রিকশাটি ওই বিদ্যালয়েরই প্রধান শিক্ষক আপ্তাব আলীর। তাকে শোকজ করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়।

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মো. শামীম আল ইমরান।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণভাগ ইউনিয়নের গজভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আপ্তাব আলীর ব্যক্তিগত চারটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা রয়েছে। এগুলোর ব্যাটারিতে চার্জ দিতে প্রতিরাতে তিনি অবৈধভাবে সরকারি ওই বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ ব্যবহার করতেন। বিদ্যালয়ের বারান্দায় সহজে রিকশা উঠানো ও নামানোর জন্য এরআগে মূল সিঁড়ির নকশা পরিবর্তন করে সাথে আরও তিনটি সিঁড়ি নির্মাণ করেন। ভবনের প্রথম তলার সিঁড়ির নিচে চার্জ দেওয়ার জন্য আলাদা সুইচবোর্ডরও ব্যবস্থা করেন। বেশ কয়েকদিন থেকে বিদ্যালয়ে রিকশার চারটি ব্যাটারি চার্জ দেওয়া হচ্ছে। চালক রাতে বিদ্যালয় ভবনের কলাপসিবল গেটের তালা খুলে একটি রিকশাসহ ব্যাটারি চার্জে লাগিয়ে চলে যেতেন। সকালে এসে তালা খুলে আবার রিকশা রিকশাসহ ব্যাটারিগুলো নিতেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকার লোকজনের মাঝে ক্ষোভ দেখা দেয়। সম্প্রতি তাঁরা এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে মৌখিক অভিযোগ করেন।

স্থানীয়দের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে সরেজমিনে গজভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান ইউএনও মো. শামীম আল ইমরান। এসময় তিনি অভিযোগের সত্যতা পান। পরে বিদ্যালয়ে অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার করে ব্যাটারি চার্জ দেওয়ার অপরাধে বিদ্যুৎ আইনে অটোরিকশা চালক সোহেল আহমদকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া বিনা অনুমতিতে সরকারি ভবনের নকশা পরিবর্তন এবং অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারের ব্যবস্থা করায় রিকশা মালিক ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আপ্তাব আলীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

বড়লেখা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রফিজ মিঞা বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বলেন, ‘সরকারি স্কুলের বিদ্যুৎ অবৈধভাবে ব্যবহারের সত্যতা পাওয়া গেছে। প্রধান শিক্ষক তাঁর ব্যক্তিগত রিকশার ব্যাটারি চার্জ দিতে স্কুলের বিদ্যুৎ ব্যবহার করতেন। আপ্তাব আলীকে শোকজ করা হয়েছে। এছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।’

বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মো. শামীম আল ইমরান বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বলেন, ‘স্থানীয়দের অভিযোগ পেয়ে রাতে ওই স্কুলে যাই। স্কুলের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে ব্যাটারি চার্জ দেওয়ার সত্যতা পাওয়া যায়। রিকশা প্রধান শিক্ষকের। তিনি অনুমতি ছাড়া সরকারি ভবনের ডিজাইন পরিবর্তন করে সিঁড়ি তৈরি করেন। অবৈধভাবে স্কুলের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে ব্যাটারি চার্জের ব্যবস্থা করেছেন। চালকে জরিমানা করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত