সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ইং

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:০৭

হবিগঞ্জে বলাৎকারে ব্যর্থ হয়ে শিশুকে হত্যা, যুবকের যাবজ্জীবন

হবিগঞ্জের লাখাইয়ে শিশু রুবেল মিয়াকে (৯) বলাৎকারে ব্যর্থ হয়ে হাত-পা বেঁধে পানিতে ফেলে হত্যার দায়ে রায়হান মিয়া ওরফে জাবেদ রায়হান (৩১) নামে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও পাঁচ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এসএম নাসিম রেজা এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত রায়হান মিয়া ওরফে জাবেদ রায়হান উপজেলা ধর্মপুর গ্রামের আব্দুল হাইয়ের পালিত ছেলে।

আদালতের পরিদর্শক মো. আল-আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রায়হান মিয়া রমনা থানার শিকদার বাড়ি এলাকার শাহজাহান মোল্লার ছেলে। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, রায়হান লাখাই উপজেলার ধর্মপুর গ্রামের আব্দুল হাইকে বাবা ডেকে সেখানেই বসবাস করে আসছিলেন। ২০০৩ সালের ৮ আগস্ট একই গ্রামের শরীফ মিয়ার ছেলে রুবেলকে মাছ ধরার কথা বলে নৌকায় করে পার্শ্ববর্তী হাওরে নিয়ে বলাৎকারের চেষ্টা চালায় সে। এ সময় শিশু রুবেল চিৎকার শুরু করলে রায়হান ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাত-পা বেঁধে পানিতে ফেলে দেয় রায়হান। ঘটনার তিনদিন পর হাওরে ভাসমান অবস্থায় তার মরদেহ দেখতে পান স্থানীয়রা।

১১ আগস্ট মরদেহ উদ্ধারের পর রুবেলের বাবা বাদী হয়ে রায়হানকে একমাত্র আসামি করে লাখাই থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০০৫ সালের ৫ অক্টোবর লাখাই থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান মিয়া তদন্ত শেষে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। হত্যাকাণ্ডের দীর্ঘ ১৬ বছর পর ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত আজ এ রায় দেন।

হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ ফারুক জানান, রায় ঘোষণার পর নিহত রুবেলের পরিবার সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত