বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:৩১

ফিরে যেতে হবে ‘প্রেমের টানে’ বাংলাদেশে আসা ভারতীয় সেই গৃহবধূকে

জৈন্তাপুর সীমান্তে বিএসএফ-বিজিবি’র মধ্যে পতাকা বৈঠক

প্রেমের টানে জৈন্তাপুর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছিলেন ভারতের খাসিয়া গৃহবধূ কারেংশু। এ নিয়ে জৈন্তাপুর উপজেলার টিপরাখালা সীমান্তে দুই দেশের বাসিন্দাদের মধ্যে দেখা দিয়েছিলো উত্তেজনা। এর জের ধরে মঙ্গলবার বাংলাদেশের এক যুবকসহ শতাধিক গরু ধরে নিয়ে যায় ভারতীয় খাসিয়ারা।

দুই দেশের উত্তেজনার প্রেক্ষিতে বুধবার সকাল ১০টায় টিপরাখলা সীমান্তে দুই দেশের সীমান্ত রক্ষীদের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পতাকা বৈঠকে ভারতী নারী ফেরত এবং বাংলাদেশী নাগরিকসহ গরু ফেরত দেওয়ার ব্যাপারে উভয় দেশ সম্মত হয়। পতাকা বৈঠকের পরপর সীমান্ত পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এদিকে ভারতীয় নারী বর্তমানে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ীতে রয়েছেন বলে জানা গেছে। তাকে জৈন্তাপুরে নিয়ে আসার পর বৃহস্পতিবার সীমান্ত আইন মেনে হস্তান্তর করা হবে বলে জানা যায়।

এলাকাবাসী সূত্রে যানা যায়, শনিবার (১২ অক্টোবর) ভারতের এসপিটিলা এলাকার হেওয়াই বস্তির চংকর খাসিয়ার স্ত্রী কারেংশু সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার টিপরাখলা গ্রামের মৃত হারিছ উদ্দিন উরফে আনাই মিয়ার ছেলে ফিরোজ মিয়ার হাত ধরে বাংলাদেশে চলে আসেন। এঘাটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার দুপুর অনুমান ২টায় টিপরাখলা এলাকা হতে ভারতীয় খাসিয়ারা টিপরাখলা গ্রামের তজম্মুল আলীর ছেলে আব্দুন নুর (৪২) সহ প্রায় শতাধিক গরু ধরে নিয়ে যায়। এঘটনাকে কেন্দ্র করে সীমান্তে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ক্যাম্প পর্যায়ে বৈঠকের পর পর এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

জৈন্তাপুর ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুল কাদির বলেন, এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ রাখতে সকাল ১০টায় পতাকা বৈঠক হয়। বৈঠকে সীমান্ত এলাকা শান্তিপূর্ণ রাখার জন্য উভয় দেশ সম্মত হয়েছে। বাংলাদেশে চলে আসা নারীকে ফেরত দেওয়া, খাসিয়া কর্তৃক ধরে নিয়ে যাওয়া বাংলাদেশী সহ গরু হস্তান্তর করা হবে মর্মে শান্তিপূর্ণ ভাবে পতাকা বৈঠক শেষ হয়। ইতোমধ্যে আমরা নারীর সন্ধান পেয়েছি, তাকে আনতে পুলিশের সহায়তা করছে, থানার আসার পর পর টিপরাখলা এলাকা দিয়ে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত