বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ ইং

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

০৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:২৪

মৌলভীবাজারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্যানিটারি প্যাড প্রদানের দাবিতে গণস্বাক্ষর

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং কমিউনিটি ক্লিনিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বিনামূল্যে স্যানিটারি প্যাড প্রদানের দাবিতে মৌলভীবাজারে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধন হয়েছে।

বুধবার (৬ নভেম্বর) দুপুরে নারীর স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফোরামের (নাসাসু) উদ্যোগে মৌলভীবাজার সরকারী মহিলা কলেজে মাসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত ওয়ার্কশপের মধ্য দিয়ে গণস্বাক্ষর কর্মসূচীর উদ্বোধন করে ।

‘Menstrual Hygiene Awareness Program in Bangladesh’ নামের এই ওয়ার্কশপের উপস্থিত ছিলেন সিলেট পার্ক ভিউ মেডিকেলের ইন্টার্ন চিকিৎসক ফাতেমা জান্নাত ও মৌলভীবাজারের স্বেচ্ছাসেবীরা। ওয়ার্কশপে মেয়েদেরকে নিরাপদ মাসিক, স্যানিটারি প্যাড ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন করা সৃষ্টির জন্য আলোচনা করা হয় । এর পাশাপাশি কলেজে একটি ইমার্জেন্সি প্যাড কর্নার উদ্বোধন করা হয় । যেখানে কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের মাসিকের দিনগুলোতে অন পেমেন্ট প্যাড সংগ্রহ করতে পারবে।

এই ‘ইমার্জেন্সি প্যাড কর্নার’ টি ২০১৫ সালের মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরিপত্রের একটি প্রতিফলন। যেখানে ছাত্রীদের সুবিধার্থে অন পেমেন্ট অথবা বিনামূল্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্যানিটারি প্যাড রাখার কথা বলা হয়েছে। সারা দেশে মোট সাতটি দাবিতে নাসাসু এই গণস্বাক্ষর কর্মসূচী চালাবে।

নাসাসুর দাবিগুলো হচ্ছে- প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বিনামূল্যে স্যানিটারি প্যাড প্রদান। আগামী ২০২০-২১ বাজেটে স্বাস্থ্য খাত, সামাজিক সুরক্ষা খাত এবং কল্যাণমূলক খাত থেকে বিনামূল্যে প্যাড প্রদানের জন্য বরাদ্দের ব্যবস্থা করা । অতিসত্বর মাসিক ব্যবস্থাপনা নীতিমালা তৈরি করা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নারীদের জন্য আলাদা ওয়াশরুম এবং ডাস্টবিনের ব্যবস্থা করা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন কিশোরী ক্লাবে শিক্ষার্থীদের মাসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান। নারীদের মধ্যে মাসিক সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং কমিউনিটি ক্লিনিকে দক্ষ স্বাস্থ্য কর্মী নিয়োগ। বাজারে উৎপাদিত জেল প্যাডকে সম্পূর্ণ না করে, পরিবেশবান্ধব এবং স্বাস্থ্যসম্মত অর্গানিক কটন স্যানিটারি প্যাড তৈরির জন্য সরকারের আইন প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন।

এরই প্রেক্ষিতে আগামী কিছুদিন মৌলভীবাজারে বিভিন্ন জমায়েত বহুল এলাকা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে নাসাসু জন মানুষকে মাসিক সম্পর্কে সচেতন করবে এবং স্বাক্ষর কর্মসূচী চালাবে। দাবিসহ এই স্বাক্ষরগুলো জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে তারা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে পেশ করবে। এভাবেই দেশের সব নারীর জন্য স্যানিটারি প্যাড নিশ্চিত করতে দেশ জুড়ে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত