শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৫:২৭

সিলেটের মত এমন বিশৃঙ্খলা আর কোথাও দেখিনি: হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, সিলেটের নেতা-কর্মীদের মধ্যে শৃঙ্খলার অনেক ঘাটতি রয়েছে। আমরা দেশের অনেক যায়গায় ঘুরেছি, অনেক সম্মেলনে যোগ দিয়েছি, কিন্তু কোথাও এমন বিশৃঙ্খলতা চোখে পড়েনি।

তিনি বলেন, সিলেটের সম্মেলনে হাজার হাজার নেতাকর্মীর উপস্থিতি ও নগরীর সাজ দেখে মনে হচ্ছিল সম্মেলন খুবই সুন্দর হবে। কিন্তু এখানে শৃঙ্খলার খুবই অভাব পরিলক্ষিত হয়েছে। আমি যুগ্ম সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব নেয়ার পর সারা দেশ ঘুরলেও এমন বিশৃঙ্খলা দেখিনি।

নগরীর আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) আয়োজিত সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বের বক্তব্যে তিনি এমন কথা বলেন।

এর আগে তিনি তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন লড়েছেন বাংলার স্বাধীনতা ও বাঙালির জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য। আওয়ামী লীগের পথচলা কখনোই মসৃণ ছিল না।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার উপর দেশের মানুষ ভরসা রাখে। আমরা কখনোই কারো সাথে বেঈমানি করিনি এবং আওয়ামী লীগও কারও সাথে কখনো বেঈমানি করেনি, আর ভবিষ্যতেও করবো না। তাই দলও তাদের সাথে বেঈমানি না করে আসুন ঐক্যবদ্ধ হয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে উন্নয়ন বিরোধীদের জবাব দেই। এটাই হোক আজকে আমাদের প্রত্যয়।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি শ্রদ্ধা জানাই আমাদের ইতিহাসের মহানায়ক বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা ও স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অমর স্মৃতির প্রতি। বাংলার স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন পর্যায়ে আত্মাহুতি দিয়েছেন তারের স্মৃতির প্রতি।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও গণতন্ত্রকে বাঁচতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। বাংলাদেশকে বাঁচতে হলে শেখ হাসিনাকে বাঁচতে হবে বলেও যোগ করেন কাদের। ঐতিহ্যের সাথে প্রযুক্তির সমন্বয় ঘটিয়ে ২০২১ সালে উন্নয়নশীল দেশের মডেলে তৈরি করতে আওয়ামী লীগকে নতুন করে গড়বো।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত আছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য সুজিত রায় নন্দী, অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান প্রমুখ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত