শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ইং

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০১:৩৬

পর্যটনের নতুন সম্ভাবনা সুনামগঞ্জের ‘বিকি বিল’

বিলজুড়ে লাল শাপলার মেলা

যে দিকে চোখ যায় শুধু লাল শাপলা। যেন লাল শাপলার মেলা বিলজুড়ে। পাহাড়ের কাছে হাওরের এমন সৌন্দর্য স্থানীয়দের তো বটেই, মুগ্ধ করছে বিভিন্নস্থান থেকে আসা লোকজনকেও। এই বিলে এখন এখন তাকালে মনে হবে লাল গালিচা বিছানো। জলের দেখা মিলবে পরে।

বিকি বিল নামে পরিচিত এই বিল এখন সুনামগঞ্জের নতুন সম্ভাবনা হিসেবে দেখা দিয়েছে। লাল শাপলার সমারহ ভালো করে দিতে পারে যে কারো মন। চাষাবাদ ছাড়াই হাওরে ফুটেছে লাল শাপলা। ফুলের সমাহার দেখে মুগ্ধ দেখতে আসা পর্যটকরা। তবে বিকি বিলে যেতে সড়ক যোগাযোগের অবস্থা নাজুক।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট বাজার থেকে বড়ছড়া-চারাগাঁও শুল্কস্টেশন এলাকায় যেতে কাশতাল গ্রামের পাশে গেলেই চোখে পড়ে এই বিল। বাদাঘাট বাজার থেকে দূরত্ব এক কিলোমিটারের মতো হবে। সড়কের বাঁ পাশে বিকি বিল। ডানে তাকালে চোখে পড়বে মেঘালয় পাহাড়। পাহাড়ের ওপরে মেঘের খেলা। হাওর-পাহাড়ের সৌন্দর্য এখন এখানে মিলেমিশে একাকার হয়ে আছে। বিলে শাপলার ফাঁকে ফাঁকে ছোট নৌকায় করে ঘুরছেন লোকজন। কোমর সমান জলে নেমে শালুক তুলছে আশপাশের গ্রামে নারী ও শিশুরা। এই সময় এগুলো বিক্রি করে কিছু বাড়তি আয় করে তারা।

জানা গেছে, বিকিবিলটি হলহলিয়ার চক ও দিঘলবাঁক মৌজার প্রায় ১৪.৯৫ একর জায়গা নিয়ে। উত্তর বড়দল ইউনিয়নস্থিত বিকিবিলটি বাদাঘাট-টেকেরঘাট রাস্তার কাশতাল গ্রামের পাশে অবস্থিত। কাশতাল, বরোখাড়া ও আমবাড়ি গ্রাম বিকি বিলটিকে তিন দিক থেকে ঘিরে রেখেছে যার পাশেই মেঘালয়ের সীমান্ত অবস্থিত। কোন রকম চাষাবাদ ছাড়াই ১৫-১৬ বছর যাবত প্রাকৃতিকভাবে এই বিলে লাল শাপলা ফুলের বিপুল সমারোহ ঘটে। বছরের ছয় মাস এই বিলে পানি থাকে বিধায় ছয় মাসই লাল শাপলার এই অপরূপ দৃশ্য দর্শনার্থীগণ উপভোগ করতে পারেন। ভোর থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ফুটে থাকা শাপলাগুলো সবুজের মধ্যে লাল চাদরে ঢেকে রাখে যা এখানে ঘুরতে আসা ভ্রমণ পিয়াসিদের ভ্রমণের আনন্দে নতুন মাত্রা তৈরি করে।

স্থানীয় বাদাঘাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক রফিকুল ইসলাম জানান, তাহিরপুর এমনিতেই দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য খবুই আকর্ষণীয় স্থান। এখানে টাঙ্গুয়ার হাওর, শহীদ সিরাজ লেক (নিলাদ্রী), শিমুল বাগান, বারিক টিলা ও যাদুকাটা নদের সৌন্দর্য দেখতে প্রতিদিন পর্যটকেরা আসেন। কিন্তু এই এলাকাতে বিকি বিলজুড়ে লাল শাপলার এমন সৌন্দর্য ছড়িয়ে আছে এতদিন এটি অনেকের নজরে আসেনি। এখন মানুষ জেনে দেখতে আসছেন। তিনি জানান, আগস্ট থেকে নভেম্বর-এই চারমাস মূলত লাল শাপলা থাকে।  লাল শাপলার সৌন্দর্য দেখতে হলে সকালে আসতে হবে।

এদিকে, সুনামগঞ্জে তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী উত্তর বড়দল ইউনিয়নের কাশতাল এলাকায় অবস্থিত লাল শাপলার ‘বিকি বিল’কে পর্যটন এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার সকালে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ শনিবার সকালে ওই বিল পরিদর্শনে যান। এরপর এটিকে পর্যটকদের ভ্রমণের জন্য নতুন এলাকা হিসেবে সেখানে একটি সাইনবোর্ড টানিয়ে দেন।

এসময় জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ বলেন, তাহিরপুর উপজেলাধীন বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ টাঙ্গুয়ার হাওর, নয়নাভিরাম নিলাদ্রী ডিসি পার্ক, শহীদ সিরাজ লেক, বারেকের টিলা, যাদুকাটা নদী, শিমুল বাগান, প্রতœতাত্তিক নিদর্শন হলহলিয়া জমিদার বাড়ির পাশাপাশি লাল শাপলার বিকি বিলটি পর্যটন সম্ভবনার নতুন মাত্রা যোগ করবে। ভবিষ্যতে এটি পর্যটনে আকর্ষণে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি করবে। জেলা প্রশাসন বিকিবিল এর উন্নয়নসহ এলাকার রাস্তাঘাট উন্নয়নের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত