বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

০৪ জুন, ২০১৯ ১৪:৫৯

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঈদ উদযাপন

সৌদি আরব ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন জেলায় উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর।

মঙ্গলবার (৪ জুন) দিনাজপুর, চাঁদপুর, ভোলা, ঝিনাইদহ, শেরপুরসহ কয়েক জেলার লক্ষাধিক মুসল্লি ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

সৌদি আরবের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দিনাজপুরের পাঁচ উপজেলার কিছু এলাকায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে প্রায় দুই হাজার পরিবার। সদর, বিরামপুর, চিরিরবন্দর, পার্বতীপুর, ও কাহারোল এই পাঁচ উপজেলার মুসল্লিরা বিভিন্ন স্থানে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় দিনাজপুর শহরের বাসুনিয়াপট্টিতে একটি কমিউনিটি সেন্টারে (পার্টি সেন্টার) অনুষ্ঠিত ঈদের জামাতে প্রায় ২০০ মুসল্লি অংশ নেন। এখানে ইমামতি করেন মাওলানা সাইফুল ইসলাম।

চাঁদপুরের ৪০ গ্রামে আজ ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হচ্ছে। জেলার ৪০টি গ্রামে সাদ্রা দরবার শরীফের অনুসারীরা আগাম ঈদ পালন করেন। সকালে মুসল্লিরা দলে দলে ঈদগাহ ময়দানে ছুটে এসে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা হামিদীয়া ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে সকাল পৌনে ১০টায় ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ইমামতি করেন সাদ্রা দরবার সরীফের পীর মাওলানা আরিফ চৌধুরী। শত শত মুসল্লি এ ঈদের জামায়েত অংশ নেয়।

এছাড়া ফরিদগঞ্জ, মতলব, কচুয়া ও শাহরাস্তিসহ ৫ উপজেলার প্রায় ৪০টি গ্রামে আজ ঈদ উদযাপিত হচ্ছে। নামাজ শেষে দেশের শান্তি কামনায় মোনাজাত পালন করা হয়।

ভোলার পাঁচ উপজেলার ১৪টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করেছেন। সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে মঙ্গলবার সুরেশ্বর দরবারে পীর ও সাতকানিয়া অনুসারীরা পৃথক পৃথকভাবে ঈদ পালন করেন।

সকাল ৯ টায় জেলার বোরহানউদ্দিনের মুলাইপত্তন গ্রামের মজনু মিয়ার বাড়ির দরজায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে কয়েক শতাধিক মানুষ জামাতে শরীক হন। এছাড়াও পর্যায়ক্রমে চৌকিদার বাড়ি, পঞ্চায়েত বাড়িসহ বিভিন্ন এলাকায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।
ঝিনাইদহ
সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে ঈদুল ফিতরের ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকালে হরিণাকুণ্ডু উপজেলা পরিষদ মোড়ে কামরুল ইসলাম বুলবুলের মিল চাতালে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন মাওলানা রেজাউল ইসলাম।

জামাতে হরিণাকুণ্ডু, দৌলতপুর, কুলবাড়িয়া, বৈঠাপাড়া, পায়রাডাঙ্গা, নিতনন্দপুর, পার্বতীপুরসহ গ্রামের দুই শতাধিক মুসল্লি ঈদের নামাজ আদায় করেন।

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কিছু দেশের সঙ্গে মিল রেখে শেরপুরের বিভিন্ন স্থানে আগাম পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

শেরপুর সদরের উত্তর চরখারচর ও দক্ষিণ চরখারচর, নালিতাবাড়ী উপজেলার নন্নী পশ্চিমপাড়া ও গোবিন্দনগর ছয় আনি পাড়া, নকলা উপজেলার নারায়নখোলা ও চরকৈয়া এবং ঝিনাইগাতি উপজেলার বনগাঁও চতল গ্রামে পৃথকভাবে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হয়েছে।

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন মৌলভীবাজার জেলায় শতাধিক পরিবারের মুসল্লি।

সকাল সোয়া ৭টায় মৌলভীবাজার শহরের সার্কিট হাউস এলাকার আহমেদ শাবিস্তা নামক বাসার ছাদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ঢাকা, বিক্রমপুর, গোপালগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত নারী ও পুরুষ অংশ নেয়।

নামাজে ইমামতি করেন আলহাজ আব্দুল মাওফিক চৌধুরী (পীর সাহেব উজান্ডি ভারত)।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত