বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

০৮ জুলাই, ২০১৯ ১৫:৩২

টানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন চট্টগ্রাম, ভোগান্তিতে নগরবাসী

চট্টগ্রামে গত তিন দিন ধরে টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে পড়েছে নগরবাসী। বৃষ্টিতে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় ঘরবন্দি হয়ে পড়েছেন নগরীর নিচু এলাকার বাসিন্দারা। সড়কে কমে গেছে যান চলাচল। তবে এখন পর্যন্ত নগরীর কোথাও কোনও দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

নগরীর আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা নুরুল আবছার জানান, গত তিন দিন ধরে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। কিন্তু সোমবার সকাল (৮ জুলাই) থেকে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টিতে বাসা থেকে বের হতে পারছি না। সিডিএ আবাসিক এলাকায় কোমর পানি জমা হয়েছে।

শুধু আগ্রাবাদ, সিডিএ এলাকা নয়, শনিবার সকাল থেকে শুরু হওয়ার অবিরাম বৃষ্টিতে নগরীর হালিশহর আবাসিক এলাকা, আগ্রাবাদ এক্সসেস রোড, প্রবর্তক মোড়, মুরাদপুর, দুই নম্বর গেট, অক্সিজেন মোড়, চকবাজার, চাক্তাই, বাকলিয়া, বাদামতলসহ অধিকাংশ এলাকায় হাঁটু থেকে কোমর পরিমাণ পানি জমে গেছে।

জলাবদ্ধতার কারণে এসব সড়কে যান চলাচলে বাধার সৃষ্টি হচ্ছে। সড়কে যান চলাচল কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন নগরীর শ্রমজীবী মানুষ।

বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে কাজ করেন নগরীর লালখান বাজার এলাকার বাসিন্দা এইচ এম পাপ্পু। তিনি বলেন, সকালে ক্লায়েন্টের অফিসের উদ্দেশে পাঁচলাইশ যাওয়ার জন্য বের হয়েছিলাম। দুই নম্বর গেট এলাকায় হাঁটু পরিমাণ পানি ডিঙিয়ে প্রবর্তক মোড় গিয়ে দেখি সেখানে কোমর পানি। পরে বাধ্য হয়ে অফিসে ফিরে আসি।

নগরীর ষোলশহর দুই নম্বর গেট এলাকার ভ্যানচালক আব্দুল খালেক জানান, টানা বৃষ্টিতে তাকে বাসায় অলস সময় পার করতে হচ্ছে। আজ সকালে ভ্যান নিয়ে বের হওয়ার পরও এখন পর্যন্ত কোনও ভাড়া পাননি।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, অবিরাম এ বৃষ্টি মঙ্গলবার পর্যন্ত চলবে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ডিউটি অফিসার প্রদীপ কান্তি রায় বলেন, সোমবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় নগরীতে ১৩৬ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে।’

এদিকে বৃষ্টিতে নগরীর লালখান বাজার মতি ঝরণা এলাকায় ছোট একটি পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। যদিও এ ঘটনায় কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এছাড়া নগরীর হেমসেন লেইন এলাকায় একটি দেয়াল ধসের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায়ও কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

ফায়ার সার্ভিসের আগ্রাবাদ স্টেশনের উপ-পরিচালক জসীম উদ্দিন জানান, বৃষ্টিতে এখন পর্যন্ত নগরীর কোথাও বড় ধরনের কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি। যেকোনও দুর্ঘটনা মোকাবিলায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রস্তুত রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত