বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯ ইং

আরিফ জেবতিক

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৬:৩২

সিলেট একটা সিমেন্টের বস্তা হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ

সিলেটের একটি ঐতিহাসিক ভবন ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে। আবু সিনা ছাত্রাবাস নামের এই ভবনটি ১৫০ বছরেরও বেশি পুরোনো, বিশেষ করে চুন-সুরকির নির্মানশৈলীতে নির্মিত এই ভবনটি। এই ভবন ভেঙ্গে ফেলে এখানে হাসপাতাল নির্মান করা হবে। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই ভবনের ডানে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বামে সিলেট সদর হাসপাতাল। দুই হাসপাতালের মাঝখানে এই স্থানে হাসপাতাল নির্মানের কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই। খাদিম নগরে একটা হাসপাতাল ভবন বানিয়ে ফেলে রাখা হয়েছে, চালু করা হয়নি। ভবন বানাতে হয়েছে হালুয়া রুটির ভাগাভাগির জন্য, সুতরাং বানানো হয়েছে, কিন্তু হাসপাতাল চালু হয়নি। দক্ষিণ সুরমায় একটি সরকারি হাসপাতাল খুব জরুরি, তাহলে কয়েকটি উপজেলার মানুষকে চিকিৎসার জন্য আর শহরে প্রবেশ করতে হয় না। কিন্তু ওসবে নজর নেই। 'উন্নয়ন' ভরা হবে দেড়শ বছরের দৃষ্টি নন্দন ঐতিহ্যবাহী ভবনটিকে ভেঙ্গে।

আফগানিস্তানে মোল্লা ওমর সেখানকার ঐতিহাসিক সব ভবন, বৌদ্ধ স্থাপনা সব ভেঙ্গে ফেলেছিল। শত বছরের ঐতিহ্য ডিনামাইট দিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছিল। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কোনো অনুরোধই তারা কানে তুলে নি। কারন মোল্লা ওমর আর তার অনুসারীরা ছিল বর্বর। সেই ঐতিহ্যগুলোর জন্য সারা বিশ্ব কাঁদে।

আমাদের সিলেটেও আবু সিনা ছাত্রাবাসটি থাকবে না। হাসপাতাল হোক না হোক, এটা ভাঙ্গার কন্ট্রাক্ট যেহেতু কেউ একজন পেয়েছেন, সুতরাং উনাকে সেই কাজ করতে দেয়া হবে। কারণ এসব ঠিকাদারির ভাগযোগ উপরে নিচে অনেকেই পেয়ে থাকে।
সিলেট একটা সিমেন্টের বস্তা হয়ে যাচ্ছে ক্রমশ। এই শহরের সবগুলো দীঘি, ডোবা-নালা ভরাট করা শেষ। সবগুলো মাঠ শেষ। এখন পুরোনো ভবন ভেঙ্গে বাকিসবও শেষ হবে। কুড়ি বছর পরে আমাদের আফসোস হবে হয়তো। কিন্তু আজ আমরা বেঁচে আছি মূর্খ, বর্বর, ইতরদের সময়ে।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহিত)

আরিফ জেবতিক: লেখক, সাংবাদিক।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত