সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

আরিফ জেবতিক

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:২৫

‘ফেয়ার শেয়ার’ কথাটা বাজারে চালু করতে দেবেন না

জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটির উন্নয়ন কাজ থেকে 'ফেয়ার শেয়ার' হিসেবে ৮৬ কোটি টাকা দাবি করেছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক; জাহাঙ্গীরনগর ভার্সিটির ভিসির বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে ডেইলি স্টার।

অভিযোগের যে ভিত্তি আছে সেটা বুঝা যায় যে সাধারণ সম্পাদক রাব্বানী ডেইলি স্টার-এর রিপোর্টারের কাছে জানিয়েছেন তারা 'ফেয়ার শেয়ার' (সাবেক মন্ত্রীর মতে যা 'সহনশীল ঘুষ'-এর মতোই 'সহনশীল চাঁদাবাজি') চেয়েছেন।

কথা হচ্ছে যে, ভিসি ৮৬ কোটি টাকা চাঁদা দিতে পারেন বলে শোভন-রাব্বানীরা জানেন, সেই ভিসির হাত কতোটুকু লম্বা সেটাও খেয়াল রাখা উচিত ছিল। সেই ভিসি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়েছেন। এবং প্রধানমন্ত্রী এই অভিযোগের ভিত্তিতে ভিসিকে বলেছেন, 'তারা তোমাকেও ট্রাবল দিচ্ছে!' মানে উনার কাছে হয়তো আরও ট্রাবলের খবর আছে।

ইউটিউবে একটা ভিডিওতে দেখলাম, রাব্বানী সাহেব দাঁতমুখ খিচিয়ে একটা গান গাচ্ছেন, 'মমতাময়ী মায়ের ভ্যানগার্ড হয়েছি মোরা, ছিলাম, আছি, থাকব।' তো, এই পর্যায়ে কমন কমেন্ট হবে, 'আলহামদুলিল্লাহ ফর এভরিথিং' এবং 'প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।'

সেদিনও ভার্সিটির এক শিক্ষক ব্যক্তিগত আড্ডায় বলছিলেন, 'আজকাল পোলাপান ফার্স্ট ইয়ারে ঢুকেই বিসিএস গাইড মুখস্থ করা শুরু করে।' আমি বলেছিলাম, 'স্যার, আমরা ছিলাম বোকা, এরা বুদ্ধিমান।'

এখন আমার মনে হচ্ছে বিসিএস দেয়া পোলাপানরাই আসলে বোকা। মা-বাবাদের উচিত ক্লাস এইট থেকে বাচ্চাদেরকে কোচিং সেন্টারে ঢুকানো যাতে বড় হয়ে সরকারি ছাত্রসংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাধারণ সম্পাদক হতে পারে। ক্লাস এইটে ঐকিক নিয়মের অংক দেয়া যাইতে পারে, 'এক খ্যাপেই যদি ৮৪ কোটি টাকা আবদার করা যায়, তাহলে দেশের সব চাইতে বড় লোক হইতে হইলে কয়টা আবদার করা লাগবে?'

যাই হোক, এমনিতে এরকম তলে তলে টেম্পো অনেক চলতে পারে, কিন্তু খবর পত্রিকায় আসার পর অন্তত একটা লোক দেখানো তদন্ত হলেও করা উচিত। কারণ সবসময় হাওয়া ভবনের দোহাই দিয়ে পার পাওয়া যাবে না।

বিএনপি কিন্তু এর চাইতে অনেক ছোট অপরাধের অভিযোগে ছাত্রদলের রিজভী-ইলিয়াস কমিটি ভেঙে ইলিয়াস আলীকে জেলে নিয়ে গিয়েছিল। স্থানীয় মাস্তানির অভিযোগে ছাত্রদল সভাপতি নাসির উদ্দিন পিন্টুকে জেলে ভরে দিয়েছিল।

'ফেয়ার শেয়ার' কথাটাকে বাজারে চালু করতে দিয়েন না, আখেরে এইটা কিংবদন্তি শব্দ হিসেবে রাজনীতির ইতিহাসে রয়ে যাবে।
[লেখাটি আরিফ জেবতিকের ফেসবুক থেকে নেওয়া]

আপনার মন্তব্য

আলোচিত