Sylhet Today 24 PRINT

‘রেডজোনে’ শ্রীমঙ্গলের বেশ কয়েকটি এলাকা

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি |  ১৫ জুন, ২০২০

নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ‘রেড, ইয়েলো ও গ্রিনজোনে’ ভাগ হচ্ছে দেশ। সংক্রমণের হার বিবেচনায় বিভিন্ন এলাকাকে ‘রেড, ইয়েলো ও গ্রিনজোনে’ ভাগ করা হচ্ছে। সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত অঞ্চলকে ‘রেডজোন’ আখ্যা দেওয়া হচ্ছে। পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গলের এইতালিকা নিয়ে আগ্রহের অন্ত নেই এলাকাবাসীর৷

শ্রীমঙ্গলের সংক্রমণ হার বিবেচনা করে দেখা গেছে অধিকাংশ এলাকাই পড়েছে ‘ইয়েলো ও গ্রিনজোনে’। কিছু অংশ পড়েছে ‘রেডজোনে’। মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে- শ্রীমঙ্গল পৌরসভা এবং সদর ইউনিয়নের কিছু অংশ রেড জোনে পড়েছে।

জানা গেছে- শ্রীমঙ্গলের কালীঘাট রোড, মিশন রোড, রুপসপুর, সবুজবাগ, মুসলিমবাগ, লালবাগ এবং বিরাইমপুর, ‘রেডজোনে’ পড়েছে। বাকি সব এলাকা ‘ইয়েলো এবং গ্রিনজোনে’ পড়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিভিল সার্জন ডা. তওহীদ আহমদ  বলেন- সংক্রমেণর হার বিশ্লেষণ করে মৌলভীবাজারের প্রত্যেক উপজেলা ও ইউনিয়নের ‘রেড, গ্রিন ও ইয়েলোজোনে’ ভাগ করা হয়েছে। সোমবার (১৫ জুন) মন্ত্রণালয়ে সেটা প্রেরণ করা হয়েছে। এটি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সাথে সমন্বয় করে বাস্তবায়ন করা হবে।

সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী কোনো এলাকায় ১ লাখের মধ্যে ১০ জন করোনা আক্রান্ত হলে ‘রেডজোন’। ৩ থেকে ৯.৯ শতাংশ আক্রান্ত হলে ‘ইয়েলোজোন’। আর ০ থেকে ২.৯ শতাংশ আক্রান্ত হলে ‘গ্রিনজোন’।

জানা যায়, ‘রেডজোন’ চিহ্নিত এলাকায় পুরো লকডাউন করে দেওয়া হবে। এ জোনের কেউ বাইরে যেতে বা বাইরে থেকে কেউ এ জোনের ভেতরে যেতে পারবে না। এ জোনের দোকানপাট, বিপণিবিতান, সরকারি-বেসরকারি কার্যালয় সব বন্ধ থাকবে। এ মনকি এ জোনে ঘরে বসে নামাজ আদায় করতে নির্দেশনা দিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন- সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা জোন ভিত্তিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

টুডে মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
[email protected] ☎ ৮৮ ০১৭ ১৪৩৪ ৯৩৯৩
ওয়াহিদ ভিউ (পঞ্চম তলা), পূর্ব জিন্দাবাজার,
সিলেট-৩১০০, বাংলাদেশ।
Developed By - IT Lab Solutions Ltd.