Advertise

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৮ ফেব্রুয়ারি , ২০২০ ১৯:২৩

সিলেটেও জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় বাংলাদেশ

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ওয়ানডে সিরিজ

একমাত্র টেস্টে জিম্বাবুয়েকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এবার টেস্ট নয়, ওয়ানডে লড়াই। তাতে কী, ক্রিকেটের এই সংস্করণেও টেস্টের মতো জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় বাংলাদেশ। এমনটিই জানালেন ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফেরা বাংলাদেশ দলের পেস ওলরাউন্ডার মো. সাইফুদ্দীন।

শুক্রবার বিকেলে সিলেট আন্তর্জার্তিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন সাইফুদ্দীন। তিনি বলেন, বাংলাদেশও দীর্ঘদিন ওয়ানডে খেলেনি। বিশ্বকাপে লর্ডসের পর আমারও আর খেলা হয়নি। তবে জিম্বুাবুয়ের বিপক্ষে আমাদের খেলা ঘরের মাটিতেই। এজন্য কন্ডিশনের বেনিফিট আমরাই পাবো। এছাড়া শেষ টেস্টে আমরা ভালো করে জিতেছি। আশা করছি ওয়ানডেতেও ভালো যাত্রা শুরু করবো।

শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সিলেট স্টেডিয়ামে অনুশীরন করে বাংলাদেশ। আগের দির দলের সঙ্গে না এলেও শুক্রবার সকালেই সিলেটে পৌঁছেন অধিনক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও ওপেনার তামিম ইকবাল। বিকেলে দলের সঙ্গে অনুশীলনেও যোগ দেন তারা।

দীর্ঘদিন পর মাঠে ফেরা প্রসঙ্গে সাইফুদ্দীন বলেন, ফিরতে পেরে খুব ভালো লাগছে। শেষ পাঁচমাস এ দিনটির অপেক্ষায় ছিলাম। টিমের সঙ্গে অনুশীলন করবো। একই ড্রেসিং রুম শেয়ার করবো। কাঙ্খিত দিনটা ফিরে পেয়ে খুব ভালো লাগছে।

তিনি বলেন, প্রত্যেকটা খেলোয়াড়ের মাঠের বাইরে থাকা কষ্টকর। মানসিকভাবে শক্ত থেকে নিজের পূর্নবাসন ঠিক প্রক্রিয়ায় করা একজন খেলোয়াড়ের জীবনে অনেক গুরুত্বপূল্ণ বিষয়। বাইরে থাকা সময়টায় জাতীয় দলের খেলা দেখেছি। হোম বা দেশের বাইরে যেসব খেলা ছিল সেগুলো দেখেছি।  সময়টা খারাপ কাটেনি।

তবে পাঁচ মাস পর দলে ফিরে অনেক কিছু নতুন মনে হচ্ছে জানিয়ে এই অলরাউন্ডার বলেন, নতুন করে আবার সব কিছু শুরু করতে চাই। এ জায়গাটা এরকম। আপনি যতদিন পারফর্ম করবেন টিকে থাকবেন, যতদিন পারফর্ম করবেন না ততদিন টিকে থাকবেন না। পরশু সুযোগ পেলে আবার নতুন করেই শুরু করতে হবে। ব্যাটিং হোক বা বোলিং হোক। টিম ম্যানেজম্যান্ট আমার উপর আস্থা রেখেছে। নির্বাচক ও টিম ম্যানেজম্যান্টের আমার ওপর আস্থা রাখার জন্য ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমি উনাদের প্রতিদান দিতে চাই।

সাইফুদ্দীন বলেন, এর আগে আমি বিশ্বকাপে ও আগের সিরিজগুলোতে নতুন বলে ও স্লগ ওভারগুলোতে বোলিং করেছি। অধিনায়ক নতুন বল তুলে দিয়ে পারফরপ্লেতে আমার থেকে উইকেটের প্রত্যাশায় থাকে। ডেড ওভারে বোলিংয়ে সব সময় রান সেভ করা যায় তত ভালো। তাতে আমাদের দলের ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যায়।

দলের নতুন কোচ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কোচের সঙ্গে আমি ত্রিদেশীয় সিরিজে কাজ করেছি। ওখানে আমার স্কিল, বোলিং ব্যাটিং সব কিছু দেখেছে। আমার খুব একটা সমস্যা হচ্ছে না।

বাংলাদেশ দলে এখন অনেক পেস বোলার থাকার প্রসঙ্গে সাইফুদ্দীন বলেন, প্রতিযোগীতা ভালো। দিন শেষে আমরা দলের কথা চিন্তা করি। যদি আমার থেকে ভালো কেউ আসে অবশ্যই তাকে ওয়েলকাম। আমার চিন্তা থাকবে তার থেকে ভালো করে দলে জায়গা করে নেওয়া। আমার জায়গায় কেউ এসে খারাপ করুক এটা তো কেউ কোনোদিনও চাইবো না। প্রমাণ করে আসতে হবে তখন।

আগামী ১ মার্চ থেকে শুরু হবে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে এই সিরিজ। সিলেটের মাঠেই আগামী ৩ ও ৬ মার্চ অনুষ।টিত হবে সিরিজের বাকী দুটি ম্যাচ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত